পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অচলিত) দ্বিতীয় খণ্ড.pdf/৫৯৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অনুবাদ-চর্চা « ጭgo জীর্ণ হইয়া মারা যান, তখন তিনি শূন্ত রাজকোষ, বিদ্রোহী প্রজা এবং এমন একটি সাম্রাজ্য রাখিয়া গেলেন, যাহা লেশমাত্র স্পশে খণ্ড খণ্ড হইয়া পড়িতে প্রস্তুত । S 8 a বরাকর পুলিস-ষ্টেশনের কয়েক মাইল দক্ষিণে বরাকর নদীর সহিত ইহার মিলনস্থানে, দামোদর নদ প্রথমে বৰ্দ্ধমান জিলায় প্রবেশ করে। অতঃপর ইহা রাণীগঞ্জ ও অণ্ডাল অতিক্রম করিয়া বৰ্দ্ধমান ও বাকুড়া জিলার মধ্যবর্তী ৪৫ মাইল-ব্যাপী সীমা রচনাপূর্বক দক্ষিণ-পূৰ্ব্ব দিকে প্রবাহিত হয় এবং খণ্ডঘোষের কাছে বৰ্দ্ধমান জিলায় প্রবেশ করে। এখানে নদী উত্তর-পূর্ব দিকে হঠাৎ বাক লয় এবং বদ্ধমান সহরের কাছ ঘেঁষিয়া যাওয়ার পর সোজা দক্ষিণে মোড় ফিরিয়া অবশেষে মোহনপুর গ্রামের নিকটে এই জিলা পরিত্যাগ করে। ইহা অতঃপর শাপুর ও হবিবপুর গ্রামের মধ্যস্থলে উত্তর দিক হইতে হুগলী জিলায় প্রবেশ করে এবং একবার পূর্বে একবার পশ্চিমে বাকিতে বাকিতে আরামবাগ মহকুমাকে জিলার অবশিষ্টাংশ হইতে পৃথক করিয়া দক্ষিণ দিকে প্রবাহিত হয় । > 8br রাজবলহাটের উপর দিক হইতে ৮ মাইল দূর পর্য্যন্ত ইহা হাওড়া এবং হুগলী জিলার মধ্যবর্তী সীমারচনা করে। সীমান্তের ৮ মাইল ধরিয়া লইলে হুগলী জিলায় এই নদীর মোট দৈর্ঘ্য প্রায় ২৮ মাইল । তারপর ইহা ওকুনা গ্রামের ধার দিয়া হাওড়া জিলায় প্রবেশ করে এবং পরে দক্ষিণে আমতার দিকে প্রবাহিত হয়, আরও ভাটিতে অগ্রসর হইয়া ইহা দক্ষিণ তীরে গাইমাট খাড়ির সহিত মিলিত হয় । আমতা পশ্চাতে ফেলিয়া ইহা বাগনানের অভিমুখে আঁকাবাক দক্ষিণগামী পথ লয় এবং অতঃপর ইহা দক্ষিণপূর্ব দিকে প্রবাহিত হইয়৷ ফলতার ঠোটার অপর ধারে হুগলী নদীতে পড়িয়াছে। হাওড়া জিলার মধ্যগত এবং তাহার সীমাসংলগ্ন ইহার দৈর্ঘ্য মোট ৪৫ মাইল । X 8 & আগে আমার ঘরগুলি ঠিকঠাক করা হউক, তার পরে তোমার সঙ্গে দেখা হইলে আমি সুখী হইব । ইহা আমার সত্য মনের কথা, অতএব এমন সন্দেহ করিও না যে তোমাকে এড়াইবার জন্য বলিতেছি। এই যে আমি ঘর সাজাইতেছি, আমার নিজের জন্য ততটা নয় যতটা তোমার জন্য, মার্চে ভারতের দিকে পাড়ি দিব বলিয়া