পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অচলিত) প্রথম খণ্ড.pdf/১২৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বন-ফুল X • S. বল না, বল না তুমি ঘুমাও কি বোলে ? কাল যে প্রেমের মালা পরাইয়াছিল এই গলে তরুণী ষোড়শী বালা! আজ তুমি ঘুমাও কি বলে ! অনাথারে একাকিনী সঁপিয়া এ পৃথিবীর কোলে ! উঠ গো— উঠ গো— পুনঃ করিন্থ আহবান ! শুন, রজনীর কাণে ওই সে করিছে খেদ গান ! সময় তোমার আজো ঘূমাবার হয় নাই ত রে! কোল বাড়াইয়া আছে পৃথিবীর স্থখ তোমা-তয়ে ! তুমি গো ঘুমাও, আমি বলি না তোমারে! জীবনের রাত্রি তব ফুরায়েছে নেত্রধারে-ধারে । এক বিন্দু অশ্রজল বরষিতে কেহ নাই তোর, জীবনের নিশা আহ। এত দিনে হইয়াছে ভোর ! ভয় দেখাইয়া আহি নিশার তামসে— একটি জলিছে চিতা, গাঢ় ঘোর ধৃষরাশি খসে ! একটি অনলশিখা জলিতেছে বিশাল প্রান্তরে, অসংখ্য ফুলিঙ্গকণা নিক্ষেপিয়া আকাশের পরে। কার চিতা জলিতেছে কাহার কে জানে ? কমলা ! কেন গে৷ তুমি তাকাইয়া চিতান্ত্রির পানে ? একাকিনী অন্ধকারে ভীষণ এ শ্মশানপ্রদেশে ভূষণবিহীনদেহে, শুদ্ধমুখে, এলোখেলো কেশে ? কায় চিতা জান কি গো কমলে জিজ্ঞালি ! দেখিতেছ কার চিতা শ্বশানেতে একাকিনী জাসি ? নীয়দের চিতা ? নীরদের দেহ অগ্নিমাঝে জলে ? निबारङ्ग cकजित्द अधि, कबरज, कि मङ्गरमङ्ग बरज !