পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অচলিত) প্রথম খণ্ড.pdf/৩২৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রবীন্দ্র-রচনাবলী নবম দৃশ্য নগর । রুদ্রচণ্ড ক্লজ । বেধেছে তুমুল রণ ; কোথা পৃথ্বীরাজ ! ওরে রে সংগ্রামদৈত্য শোণিতপিপাসী, সমস্ত হস্তিনা তুই করিস রে গ্রাস, পৃথ্বীরাজে রেখে সি এ ছুরিকা-তরে । পৃথ্বীরাজ আছে কোন শিবিরে না জানি । ভ্ৰমিতেছি তার তরে প্রভাত হইতে । আজ তার দেখা পেলে পুরাইব সাধ । একি ঘোর কোলাহল নগরের পথে, সম্মুখে, দক্ষিণে বামে সহস্ৰ বৰ্ব্বর গায়ের উপর দিয়া যেতেছে চলিয়া ! চারি দিকে রহিয়াছে প্রাসাদের বন, বাতায়ন হতে চেয়ে শত শত জাথি ! এত লোক, এত গোল সহ নাহি হয় ! [ একজন পাস্থের প্রতি ] কে গে৷ তুমি মহাশয়, মুখপানে মোর একেবারে চেয়ে আছ অবাক হইয়া ? কখন কি দেখ নাই মাহুষের মুখ ? বেথা যাই শত আঁখি মোর মুখ চেয়ে, জাখিগুলা বুঝি মোরে পাগল করিবে ! ৰেথা হেরি চারি দিকে ঝুৰ্য্যের আলোক, নয়ন বিধিছে মোর বাণের মতন ! একটু জড়িাল পাই, একটু ভাষায়, বাচি তবে দুই দণ্ড নিশ্বাস ফেলিয়া !