পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অচলিত) প্রথম খণ্ড.pdf/৪২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


रैरे রবীন্দ্র-রচনাবলী তোমার ইচ্ছার সাথে ইচ্ছা মিশায়েছি মোর, তোমার স্বখের সাথে মিশায়েছি স্থখ ।” সে কথা শুনিয়া কবি কহিল কাতর স্বরে, “প্রাণের শূন্তত তবু ঘুচিল না কেন ? ওই হৃদয়ের সাথে মিশাতে চাই এ হৃদি, দেহের আড়াল তবে রহিল গে। কেন ? সারাদিন সাধ যায় শুনাই মনের কথা, এত কথা তবে কেন পাই না খুজিয়া ? সারাদিন সাধ যায় দেখি ও মুখের পানে, দেখেও মিটে না কেন মাখির পিপাসা ? সাধ যায় এ জীবন প্রাণ ভোরে ভাল বাসি, বেসেও প্রাণের শৃষ্ঠ ঘূচিল না কেন ? অামি যত ভালবাসি তত দাও ভালবাসা, নহিলে গো পূরিবে না প্রাণের শূন্যতা । একি দেবি ! একি তৃষ্ণ জ্বলিছে হৃদয়ে মোর, ধরার অমৃত যত করিয়াছি পান, প্রকৃতির আছে যত অতুল সৌন্দর্যরাশি, প্রণয়ের আছে যত স্বধা হোতে স্বধা, কল্পনার আছে যত তরল স্বগীয় গীতি, সকলি হৃদয়ে মোর দিয়াছি ঢালিয়া— শুধু দেবি পৃথিবীর হলাহল আছে যত তাহাই করি নি পান মিটাতে পিপাসা ! শুধু দেবি ঐশ্বৰ্য্যের কনকশৃঙ্খল দিয়া বাধি নাই আমার এ স্বাধীন হৃদয় । শুধু দেবি মিটাইতে মনের বীরত্ব-গৰ্ব্ব লক্ষ মানবের রক্তে ধুই নি চরণ ! শুধু দেবি এ জীবনে নিশাচর বিলাসেরে সুখ-স্বাস্থ্য অর্ঘ্য দিয়া করি নাই সেবা ! তবু কেন হৃদয়ের তৃষা মিটিল না মোর, তবু কেন খুচিল না প্রাণের শৃঙ্গত ।