পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অচলিত) প্রথম খণ্ড.pdf/৪৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


و جت রবীন্দ্র-রচনাবলী হা কবি আমন কোরে অনর্থক তার মনে কি আঘাত করিলে যে বুঝিলে না তাহ ? এত কাল মুখস্বপ্ন ডুবায়ে রাখিয়া মন, এত দিন পরে তাহা দিবে কি ভাঙ্গিয়া ? কবি ত চলিয়া যায়— সন্ধ্যা হোয়ে এল ক্রমে, আঁধারে কাননভূমি হইল গম্ভীর— একটি নড়ে না পাতা, একটু বহে না বায়ু, স্তন্ধ বন কি যেন কি ভাবিছে নীরবে ! তখন বনাস্ত হোতে স্বধীরে শুনিল কবি উঠিছে নীরব শূন্তে বিষন্ন সঙ্গীত— তাই শুনি বন যেন রয়েছে নীরবে অতি, জোনাকি নয়ন শুধু মেলিছে মুদিছে । একবার কবি শুধু চাহিল কুটীরপানে, কাতরে বিদায় মাগি বনদেবী-কাছে নয়নের জল মূছি— যে দিকে নয়ন চলে সে দিকে পথিক কবি যাইল চলিয়া । সঙ্গীত কেন ভালবাসিলে আমায় ? কিছুই নাইক গুণ, কিছুই জানি না আমি, কি আছে ? কি দিয়ে তব তুষিব হৃদয়! যা অামার ছিল সাধ্য সকলি করেছি আমি কিছুই করি নি দোষ চরণে তোমার, শুধু ভাল বাসিয়াছি, শুধু এ পরাণ মন উপহার র্সপিয়াছি তোমার চরণে । তাতেও তোমার মন তুষিতে নারিতু যদি তবে কি করিব বল, কি আছে আমার ? গেলে যদি, গেলে চলি, যাও যেথা ভাল লাগে— একবার মনে কোরো দীন অধীনীরে ।