পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অচলিত) প্রথম খণ্ড.pdf/৪৮৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


سي86tt রবীন্দ্র-রচনাবলী এখনো পিতার শেষ কথাগুলি বাজিছে যেন সে কানে । “কোথা ৰাও যুবা ! ষেও না, বেও না— গহন কানন ম্বোর, সাবের আঁধার ঢাকিছে ধরণী, এস গো কুটীরে মোর !" “ক্ষম গো অামায়, কুটারস্বামী ! বিরাম আলয় চাহি না আমি, যে কাজের তরে ছেড়েছি অালয় সে কাজ পালিব অাগে ।” “শুন গো পথিক, ঘেও নাকো অার, অতিথির তরে মুক্ত এ দুয়ার ! দেখেছ চাহিয়া ছেয়েছে জলদ পশ্চিম গগনভাগে ।” কত না ঝটিকা বহিয়া গিয়াছে মাথার উপর দিয়া, প্রতিজ্ঞ পালিতে চলেছে তবুও যুবক নিভাঁকহিয়া । চলেছে— গহন গিরি নদী মরু কোন বাধা নাহি মানি । বুকেতে রয়েছে ছুরিকা লুকানো হৃদয়ে শপথবাণী । “গভীর ভাধারে নাহি পাই পথ, শুন গে৷ কুটারস্বামী— খুলে দাও দ্বার আজিকার মত এসেছি অতিথি অামি ।” অতি ধীরে ধীরে খুলিল হুয়ার, পথিক দেখিল চেয়ে— করুণার যেন প্রতিমার মত একটি রূপসী মেয়ে ।