পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অচলিত) প্রথম খণ্ড.pdf/৫৪৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


●ミや রবীন্দ্র-রচনাবলী যৌবনবীণার মাঝে আমি কেন থাকি আর— মলিন, কলঙ্ক-ধর একটি বেস্থরা তার ! কেন আর থাকি আমি যৌবনের ছন্দ-মাঝে, নিরর্থ অমিল এক কানেতে কঠোর বাজে ! আমার আরেক ছন্দ, আমার অারেক বীণ – সেই ছন্দে এক গান বাজিতেছে নিশিদিন । সন্ধ্যার আঁধার আর শীতের বাতাসে মিলি সে ছন্দ হয়েছে গাথা মরণকবির হাতে – সেই ছন্দ ধ্বনিতেছে হৃদয়ের নিরিবিলি, সেই ছন্দ লিখা আছে হৃদয়ের পাতে পাতে । তবে কেন চলিলাম ? সহসা কি মদে মাতি আপনারে ভুলিলাম ! তবে যত দিন বাচি রহিব হেথায় পড়ি --- এক পদ উঠিব না, মরি ত হেথায় মরি— প্রভাতে উঠিবে রবি, নিশীথে উঠিবে তারা, পড়িবে মাথার পরে রবিকর বৃষ্টিধারা । হেথা হতে উঠিব না, মৌনব্ৰত টুটিব না— চরণ অচল রবে অচল পাষাণ-পার। । দেখিস, প্রভাত কাল হইবে যখন, তরুণ পথিক দল করি হর্ষকোলাহল সমুখের পথ দিয়া করিবে গমন, আবার নাচিয়। যেন উঠে না রে মন । উল্লাসে অধীরহিয়া দুখশ্রীস্তি ভুলি গিয়া আর উঠিস না কভু করিতে ভ্রমণ । প্রভাতের মুখ দেখি উনমাদ-হেন ভূলিস নে— ভুলিস নে – সায়াহ্নেরে যেন !