পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অচলিত) প্রথম খণ্ড.pdf/৫৬৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রবীন্দ্র-রচনাবলী তোর গানে গ’লে বাবে সহস্ৰ পাষাণপ্ৰাণ । যে রাগিণী শুনে তোর গ’লেছে কঠোর মন, সে রাগিণী তোরি কণ্ঠে বাজিবে রে অনুক্ষণ । অধীর হইয়া সিন্ধু কাদিবে চরণতলে, চারি দিকে দিকৃবধূ আকুল নয়নজলে। মাথার উপরে তোর কাদিবে সহস্র তারা, অশনি গলিয়া গিয়া হইবে অশ্রুর ধারা । যে করুণ রসে আজি ডুবিল রে ও হৃদয়, শতস্রোতে তুই তাহ ঢালিবি জগতময়। যেখায় হিমাদ্রি আছে সেথা তোর নাম রবে, যেখায় জাহ্নবী বহে তোর কাব্যস্রোত ব'বে । সে জাহ্নবী বহিবেক অযুত হৃদয় দিয়া, শ্মশান পবিত্র করি মরুভূমি উৰ্ব্বরিয়া। শুনিতে শুনিতে, বৎস, তোর সে অমর গীত' জগতের শেষ দিনে রবি হবে অস্তমিত । যত দিন আছে শশী, যত দিন আছে রবি, তুই বাজাইবি বীণা তুই আদি মহাকবি ! মোর পদ্মাসনতলে রহিবে আসন তোর, নিত্য নব নব গীতে সতত রহিবি ভোর । বসি তোর পদতলে কবিবালকেরা যত শুনি তোর কণ্ঠস্বর শিখিবে সঙ্গীত কত ! এই নে আমার বীণা দি তোরে উপহার ! ষে গান গাহিতে সাধ ধ্বনিবে ইহার তার !