পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অচলিত) প্রথম খণ্ড.pdf/৭৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


@ 8 রবীন্দ্র-রচনাবলী শোকে ভয়ে ধীরে ধীরে মুদিল নয়ন— সভয়ে অঙ্কুট স্বরে সরিল বচন, “কোথা মা কমলা মোর কোথা মা জননী!” চমকি উঠিল যেন নীরব রজনী ! চমকি উঠিল যেন নীরব অবনী ! উৰ্ম্মিহীন নদী যথা ঘুমায় নীরবে— সহসা করণক্ষেপে সহসা উঠে রে কেঁপে, সহসা জাগিয়া উঠে চলউৰ্ম্মি সবে ! কমলার চিত্তবাপী সহসা উঠিল কাপি পরাণে পরাণ এলো হৃদয়ে হৃদয় ! স্তবধ শোণিতরাশি আস্ফালিল হৃদে আসি, আবার হইল চিস্তা হৃদয়ে উদয় । শোকের আঘাত লাগি পরাণ উঠিল জাগি, আবার সকল কথা হইল স্মরণ ! বিবাদে ব্যাকুল হৃদে নয়নযুগল মূদে আছেন জনক তার, হেরিল নয়ন । স্থির নয়নের পাতে পড়িল পলক, শুনিল কাতর স্বরে ডাকিছে জনক, “কোথা মা কমলা মোর কোথা মা জননী !” বিষাদে যোড়শী বালা চমকি আমনি ( নেত্রে অশ্রধারা ঝরে ) কহিল কাতর স্বরে পিতার নয়ন-’পরে রাখিয়া নয়ন, “কেন পিতা ! কেন পিতা ! এই-বে রয়েছি হেত৷”— বিষাদে নাহিক আর সরিল ৰচন ! বিবাদে মেলিয়া মাখি বালার বদনে রাখি এক দুষ্টে স্থিরনেত্রে রহিল চাহিয়া ! নেত্রপ্রান্তে দরদরে, শোক-অশ্রবারি করে, বিষাদে সন্তাপে শোকে আলোড়িত ছিয়া ! গভীরনিশ্বাসক্ষেপে হৃদয় উঠিল কেঁপে, কাটিয়া বা যায় ৰেন শোণিত-আধার।