পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অচলিত) প্রথম খণ্ড.pdf/৮৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রবীন্দ্র-রচনাবলী নতুন ফুটেছে মালতীর কলি, ঢলি ঢলি পড়ে এ ওর পানে । মধুবাসে ভুলি প্রেমালাপ তুলি অলি কত কি-যে কহিছে কানে । আয় বলি তোরে, আঁচলটি ভোরে কুড়া-না হোথায় বকুলগুলি ! মাধবীর ভরে লতা হয়ে পড়ে, আমি ধরি ধীরি আনি লো তুলি । গোলাপ কত যে ফুটেছে কমলা, দেখে যা দেখে যা বনের মেয়ে ! দেখ সে হেথায় কামিনী পাতায় গাছের তলাটি পড়েছে ছেয়ে । আয় আয় হেথা, ওই দেখ, ভাই, ভ্রমরা একটি ফুলের কোলে— কমলা, ফু দিয়ে দে-না লো উড়িয়ে, ফুলটা আমি লো নেব যে তুলে । পারি না লো আর, আয় হেথা বসি ফুলগুলি নিয়ে দুজনে গাথি ! হেথায় পবন খেলিছে কেমন তটিনীর সাথে আমোদে মাতি । আয় ভাই হেথা, কোলে রাখি মাথা শুই একটুকু ঘাসের পরে— বাতাস মধুর বহে ঝুরু কুর, আঁখি মুদে আসে ঘুমের তরে ! বল বনবালা এত কি লো জালা ! রাত দিন তুই কাদিবি বলে ! আজে ঘুমঘোর ভাঙ্গিল না তোর, আজো মজিলি না হখের রসে ! তবে যা লো ভাই ! আমি একেলাই রাশ, রাশ, করি গাথিয়া মালা ।