পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অচলিত) প্রথম খণ্ড.pdf/৯২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রবীন্দ্র-রচনাবলী জানিব আমারি পৃথিবী ধরা, খেলিব হরিণশাবক-সনে— পুলকে হরষে হৃদয় ভরা, বিষাদভাবনা নাহিক মনে । তটিনী হইতে তুলিব জল, ঢালি ঢালি দিব গাছের তলে । পাখীরে বলিব ‘কমলা বল', শরীরের ছায়া দেখিব জলে ! জেনেছি মানুষ কাহারে বলে । জেনেছি হৃদয় কাহারে বলে ! জেনেছি রে হায় ভাল বাসিলে কেমন আগুনে হৃদয় জলে ! এখন আবার বেঁধেছি চুলে, বাহুতে পরেছি সোনার বালা । উরসেতে হার দিয়েছি তুলে, কবরীর মাঝে মণির মালা ! বাকলের বাস ফেলিয়াছি দূরে— শত শ্বাস ফেলি তাহার তরে, মুছেছি কুহুম রেণুর সি দুরে আজো কাদে হৃদি বিষাদভরে ! ফুলের বলয় নাইক হাতে, কুস্কমের হার ফুলের সিখি— কুস্কমের মালা জড়ায়ে মাথে স্মরণে কেবল রাখিন্তু গাথি ! এলো এলো চুলে ফিরিব বনে রুখে রুখে চুল উড়িবে বায়ে । ফুল তুলি তুলি গহনে বনে মালা গাথি গাথি পরিব গায়ে ! হায় রে সে দিন জুলাই ভালো ! সাধের স্বপন ভাঙ্গিয়া গেছে !