পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ঊনবিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১০৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


వN9 রবীন্দ্র-রচনাবলী অবশেষে তপস্বীর তপস্তাবহির শিখা হতে নবস্থাষ্ট উঠে আসে নিরঞ্জন নবীন আলোতে । দানব বিলুপ্তি আনে, আঁধারের পন্ধিল বুদবুদে নিখিলের স্বষ্টি দেয় মুদে ; কণ্ঠ দেয় রুদ্ধ করি, বাণী হতে ছিন্ন করে স্বর, ভাষা হতে অর্থ করে দূর ; উদয়দিগন্তমুখে চাপা দেয় ঘন কালো আঁধি, প্রেমেরে সে ফেলে বাধি সংশয়ের ডোরে ; ভক্তিপাত্র শূন্ত করি শ্রদ্ধার অমৃত লয় হরে । মুক অন্ধ মৃত্তিকার স্তর, জগদল শিলা দিয়ে রচে সেথা মুক্তির কবর। ১৪ সেপ্টেম্বর ১৯৩৪ কলুষিত শু্যামল প্রাণের উৎস হতে অবারিত পুণ্যস্রোতে ধৌত হয় এ বিশ্বধরণী দিবসরজনী । হে নগরী, আপনারে বঞ্চিত করেছ সেই স্নানে, রচিয়াছ আবরণ কঠিন পাষাণে । আছ নিত্য মলিন অশুচি, তোমার ললাট হতে গেছে ঘুচি প্রকৃতির স্বহস্তের লিখা আশীৰ্বাদটিকা । উষা দিব্যদীপ্তিহার তোমার দিগন্তে এসে । রজনীর তারা তোমার আকাশদুষ্ট জাতিচু্যত, নষ্ট মন্ত্র তার, বিক্ষুব্ধ নিদ্রার