পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ঊনবিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১৫২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


S88 রবীন্দ্র-রচনাবলী হাতে পড়েছে। দেখতেই তো পাচ্ছ, ভাই, খাইয়েদাইয়ে বেশ একরকম ভালো যা হোক, আজ তবে আসি। গুটিদুয়েক রোগী এখনো মরতে বাকি আছে। [ প্রস্থান ইন্দুমতীর প্রবেশ ইন্দু ও বুড়োটি কে এসেছিল বাবা ? নিবারণ। কেন মা বুড়ো বুড়ো করছিস— তোর বাবাও তো বুড়ো। ইন্দু। (নিবারণের পাকা চুলের মধ্যে হাত বুলাইয়া) তুমি তো আমাদের আঙ্কিকালের বন্তি বুড়ে, তোমার সঙ্গে কার তুলনা ? কিন্তু ওকে তো কখনো দেখি নি। নিবারণ। ওর সঙ্গে ক্রমে খুবই পরিচয় হবে— ইন্দু। আমি খুব পরিচয় করতে চাই নে। নিবারণ। তোর এ বাবা পুরোনো ঝরঝরে হয়ে এসেছে, একবার বাবা বদল করে দেখবি নে ইন্দু ? ইন্দু। তবে আমি চললুম। নিবারণ। না না, শোন-না। তোরই যেন বাবার দরকার নেই, আমার একটি বাপের পদ খালি আছে– তাই আমি একটি সন্ধান করে বের করেছি মা । ইন্দু। তুমি কী বকছ বুঝতে পারছি নে। নিবারণ। না, তুমি আমার তেমনি হাবা মেয়ে কিনা। সব বুঝতে পেরেছিল, কেবল দুষ্টুমি ! ভূত্যের প্রবেশ ভৃত্য। তিনটি বাবু এসেছে দেখা করতে। ইন্দু। তাদের যেতে বলে দে। সকাল থেকে কেবলই বাৰু আসছে। নিবারণ। না না, ভদ্রলোক এসেছে, দেখা করা চাই । ইন্দু। তোমার যে নাবার সময় হয়েছে। নিবারণ। একবার শুনে নিই কী জন্তে এসেছেন, বেশি দেরি হবে না। ইন্দু। তুমি একবার গল্প পেলে আর উঠতে চাইবে না, আবার কালকের মতে খেতে দেরি করবে। আচ্ছ, আমি ঐ পাশের ঘরে দাড়িয়ে রইলুম, পাঁচ মিনিট বাদে ডেকে পাঠাব।