পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ঊনবিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/২০৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শেষরক্ষা ››ፃ বিনোদ । কাজ তো ফতে হয়ে গেছে, আবার কী ? চন্দ্রকান্ত। যে কাজ হয়ে গেছে সে তো ব্যক্তিগত। এখন লড়াই বাকি আছে হিউম্যানিটির জন্তে । বিনোদ । বাস রে, এই অর্ধেক রাত্তিরে শেষকালে হিউম্যানিটি নিয়ে পড়তে হবে ? • চন্দ্রকাস্ত। হিউম্যানিটির জন্তে যত ষড়যন্ত্র সে তো অর্ধেক রাত্তিরেই। বিনোদ । কোন দুঃসাধ্য কাজ করতে হবে বলে শুনি । চন্দ্রকান্ত । বাসরঘরের রুদ্ধ দুর্গ আজ আমরা স্টর্ম করব । বিনোদ । আমরা ভীরু, সামান্য পুরুষজাত মাত্ৰ— আমাদের দ্বারা কি এত বড়ো বিপ্লব ঘটতে পারবে । চন্দ্রকান্ত। নিজেকে ক্ষুদ্র জ্ঞান কোরো না বিনোদ ! ভেবে দেখো, ত্রেতাযুগে যারা সেতুবন্ধন করেছিল জীব হিসাবে তারাও ষে আমাদের চেয়ে খুব বেশি শ্রেষ্ঠ ছিল তার প্রমাণ নেই— এমন-কি, এক-আধটা বাহ বাহুল্য ছাড়া অনেক বিষয়েই মিল ছিল ; মহৎ লক্ষ্য হৃদয়ে রেখে তারাও হেঁটে সমূদ্র পার হল। আর, আমাদের কেবলমাত্র এই দরজাটুকু পার হতে হবে। এতকাল এই বাসরঘরের সামনে স্ত্রীপুরুষের যে বিচ্ছেদসমূদ্র বিরাজ করেছে কেবল একটিমাত্র মহাবীর বরবেশে সেটা লঙ্ঘন করবার অধিকারী ; কিষ্কিন্ধ্যার বাকি সকলকেই এ পারে পড়ে থাকতে হয়, এই অগৌরব যদি আমরা মোচন করতে না পারি তা হলে ধিক্ আমাদের পৌরুষ ! বিনোদ । হিয়ার হিয়ার ! চন্দ্রকান্ত। এতদিন সেখানে কেবল ভুজমুণালের শাসনই বলবান ছিল। আজ বঙ্গোপসাগরের উত্তর তীর থেকে হিমালয়ের দক্ষিণপ্রান্ত পর্যন্ত সকল পুরুষে এককণ্ঠে বলে দেখি, নাহি কি বল এ ভুজ-অর্গলে ? বিনোদ । আছে আছে ! চন্দ্রকান্ত। নবযুগে পুরুষদের কারখানাঘর-আফিসঘরের সামনে ফেমিনিজ এর আক্রমণ চলছে, আজ বাসরঘরের সামনে আমরা ম্যাসকুলিনিজম প্রচার করব। আমরা যুগান্তরের পাইওনিয়ার। বিনোদ। জয়, পুরুষজাতিকী জয়! : চক্সকান্ত । অত্যাচারকারিণীদের সিংহাসন আজ বিচলিত হোক। আবার বলো, জয় পুরুষজাতিকী জয়। গদাই, গদাই, গদাই, গঙ্গাধর, ভীরু, ট্রেটর, এসে তুমি, খোলে রুদ্ধদ্বার, ভাঙো পুরুষজাতির অপমানের বাধা ।