পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ঊনবিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৪১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বাধিক সহসা রাত্রে সে গেল চলি যে রাত্রি হয় না কভু ভোর। অদৃষ্টের যে অঞ্জলি এনেছিল স্বধা, নিল ফিরে । সেই যুগ হল গত চৈত্রশেষে অরণ্যের মাধবীর স্বগদ্ধের মতো । তখন সেদিন ছিল সবচেয়ে সত্য এ ভুবনে, সমস্ত বিশ্বের যন্ত্র বঁাধিত সে অাপন বেদনে আনন্দ ও বিষাদের স্বরে। সেই স্থখ দুঃখ তার জোনাকির খেলা মাত্র, যারা সীমাহীন অন্ধকার পূর্ণ করে চুমকির কাজে বিধে আলোকের হুচি ; সে রাত্রি অক্ষত থাকে, বিনা চিহ্নে আলো যায় ঘূচি। সে ভাঙা যুগের পরে কবিতার অরণ্যলতায় ফুটিছে ছন্দের ফুল, দোলে তারা গানের কথায় । সেদিন আজিকে ছবি হৃদয়ের অজস্তাগুহাতে অন্ধকার ভিত্তিপটে ; ঐক্য তার বিশ্বশিল্প-সাথে । [ আষাঢ় ১৩৪২ চন্দননগর ] বিহ্বলতা অপরিচিতের দেখা বিকশিত ফুলের উৎসবে পল্লবের সমারোহে । মনে পড়ে, সেই আর কবে দেখেছিন্থ শুধু ক্ষণকাল। খর সূর্যকরতাপে নিষ্ঠুর বৈশাখবেলা ধরণীরে রুদ্র অভিশাপে বন্দী করেছিল তৃষ্ণাজালে । শুষ্ক তরু, মান বন, অবসর পিককণ্ঠ, o শীর্ণচ্ছায়া অরণ্য নির্জন ।