পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ঊনবিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৪৮৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


যাত্রী g 8ማU সেখানে তার দুধের ব্যবসায়ে ফলকামনাকে তুচ্ছ করে দিয়েছে তার ভালোবাসায় ; কর্ম করেও কর্ম থেকে তার নিত্য মুক্তি। এ গোয়াল শূত্র নয়। যে-গোয়াল দুধের দিকে দৃষ্টি রেখেই গোক পোষে, কসাইকে গোরু বেচতে যার বাধে না, সেই হল শূত্র ; কর্মে তার অগৌরব, কর্ম তার বন্ধন। যে-কর্মের অস্তরে মুক্তি নেই, যেহেতু তাতে কেবল লোভ, তাতে প্রেমের অভাব, সেই কর্মেই শূন্ত্রত। জাত-শূত্রেরা পৃথিবীতে অনেক উচু উচু আসন অধিকার করে বসে আছে। তারা কেউ-বা শিক্ষক, কেউ-বা বিচারক, কেউ-বা শাসনকর্তা, কেউ-বা ধর্মযাজক। কত ঝি, দাই, চাকর, মালী, কুমোর, চাষি আছে যারা ওদের মতে শূত্র নয়— আজকের এই রৌদ্রে-উজ্জল সমুদ্রতীরের নারকেলগাছের মর্মরে তাদের জীবনসংগীতের মূল স্বরটি বাজছে। মলাক্কা ২৮শে জুলাই ১৯২৭ ט\ কল্যাণীয়াস্থ এখনই দুশো মাইল দূরে এক জায়গায় যেতে হবে। সকলেই সাজসজ্জা করে জিনিসপত্র বেঁধে প্রভত ; কেবল আমিই তৈরি হয়ে নিতে পারি নি। এখনই রেলগাড়ির উদ্দেশে মোটরগাড়িতে চড়তে হবে । দ্বারের কাছে মোটরগাড়ি উদ্যত তারস্বরে মাঝে মাঝে শৃঙ্গধবনি করছে— আমাদের সঙ্গীদের কণ্ঠে তেমন জোর নেই, কিন্তু তাদের উৎকণ্ঠ কম প্রবল নয়। অতএব, এইখানেই উঠতে হল। দিনটি চমৎকার। সমুত্র স্বগত-উক্তিতে অবিশ্রাম কলধ্বনিমুখরিত। प्रजांक ৩০শে জুলাই, ১৯২৭১ 이 কল্যাণীয়াস্থ 酶 রানী, এসেছি গিয়ানয়ার রাজবাড়িতে। মধ্যাহ্নভোজনের পূর্বে স্থনীতি রাজবাড়ির ব্ৰাহ্মণ পুরোহিতদের নিয়ে খুব আসর জমিয়ে তুলেছিলেন। খেতে বসে রাজা আমাকে বললেন একটু সংস্কৃত আওড়াতে। দু-চার রকমের শ্লোক আওড়ানো গেল। স্থনীতি

  • वैबडी निर्वजकूबांग्रँी बझ्णांनशैलएक णिथिउ ।