পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ঊনবিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৫৪১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গ্রন্থপরিচয় [ রচনাবলীর বর্তমান খণ্ডে মুক্রিত গ্রন্থগুলির প্রথম প্রকাশের তারিখ ও গ্রন্থসংক্রান্ত অন্তান্ত জ্ঞাতব্য তথ্য গ্রন্থপরিচয়ে সংকলিত হইল। এই খণ্ডে মুদ্রিত কোনো কোনো রচনা সম্বন্ধে কবির নিজের মন্তব্য মুদ্রিত হইল। পূর্ণতর তথ্যসংগ্রহ সর্বশেষ খণ্ডে একটি পঞ্জীতে সংকলিত হইবে । ] বীথিক বীথিকা ১৩৪২ সালের ভাত্র মাসে গ্রন্থাকারে প্রকাশিত হয়। শ্ৰীমতী অপরাজিত দেবীর পত্রের উত্তরে লিখিত ‘আধুনিক কবিতাটি রবীন্দ্রনাথের নির্দেশক্রমে পরবর্তী কালে (১৩৪৫) প্ৰহাসিনী গ্রন্থের অন্তভূক্ত করা হয়। সেখানে কবিতাটির মুখবন্ধে লিখিত হইয়াছে,"দ্বারীর অনবধানে এই কবিতাটি বীথিকায় অনধিকার প্রবেশ করেছিল। সেই পরিহসিতাকে যথাযোগ্য স্থানে ফিরিয়ে আনা গেল।” রচনাবলী-সংস্করণে বীথিক হইতে ‘আধুনিক কবিতাটি সেই কারণে বাদ দেওয়া হইল । রবীন্দ্রভবনে রক্ষিত পাণ্ডুলিপির সাহায্যে বর্তমান সংস্করণে অনেক কবিতার রচনাস্থান ও তারিখ সংযোজিত হইল। ‘প্রত্যপণ’ কবিতাটির ( পৃষ্ঠা ১৮) তারিখ ‘:৯৩২ ? সালের পরিবর্তে ১২ মাঘ, ১৩৪০’ হইবে । ‘ছায়াছবি কবিতাটির নিম্নমূত্রিত আরম্ভাংশটুকু বর্জনচিহ্নিত আকারে পাণ্ডুলিপিতে পাওয়া যায় – ফিরিয়া দেখি জীবনতটে অতীত পথপানে, ছায়ারূপীরা দিকে বিদিকে চলেছে নানাখানে । কেহ বা চলে নব অরুণালোকে ; উঠিছে ফুটি নূতন-জাগা চোখে অপবিচিত প্রত্যাশার প্রথম উন্মেষ ;