পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ঊনবিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৬৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১০ এপ্রিল ১৯৩৪ বীথিক হায় গো রূপকার, ভরিয়া দিয়ো জীবন-উপহার। চুকিয়ে দিয়ে তোমার দেয়, রিক্ত হাতে চলিয়া যেয়ো, কোরো না দাবি ফলের অধিকার । জানিয়ো মনে চিরজীবন সহায়হীন কাজে একটি সাথি আছেন হিয়ামাঝে ; তাপস তিনি, তিনিও সদা একা, র্তাহার কাজ ধ্যানের রূপ বাহিরে মেলে দেখা । মেঘমালা আসে অবগুষ্ঠিতা প্রভাতের অরুণ ছকুলে শৈলতটমূলে, আত্মদান অর্ঘ্য আনে পায় । তপস্বীর ধ্যান ভেঙে যায়, গিরিরাজ কঠোরতা যায় ভুলি, চরণের প্রান্ত হতে বক্ষে লয় তুলি সজল তরুণ মেঘমালা । কল্যাণে ভরিয়া উঠে মিলনের পালা । অচলে চঞ্চলে লীলা, মুকঠিন শিলা মত্ত হয় রসে । উদার দাক্ষিণ্য তার বিগলিত নিবারে বরষে, গায় কলোচ্ছল গান । সে দাক্ষিণ্য গোপনের দান এ মেঘমালারই । 《