পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ঊনবিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৯০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Ե-Հ রবীন্দ্র-রচনাবলী লীলাকাননের মাপে তোমারে করেছি খর্ব। মৃদু কলালাপে কর চিত্তবিনোদন, এ ভাষা কি তোমার আপন ? একদিন এসেছিলে আদিবনভূমে ; জীবলোক মগ্ন ঘুমে— তখনে মেলে নি চোখ, দেখে নি আলোক । সমুদ্রের তীরে তীরে শাখায় মিলায়ে শাখা ধরার কঙ্কাল দিলে ঢাকা । ছায়ায় বুনিয়া ছায়া স্তরে স্তরে সবুজ মেঘের মতো ব্যাপ্ত হলে দিকে দিগন্তরে । লতায় গুল্মেতে ঘন, মৃতগাছ-শুষ্কপাতা-ভরা, আলোহীন পথহীন ধরা । অরণ্যের আর্দ্রগন্ধে নিবিড় বাতাস যেন রুদ্ধশ্বাস চলিতে না পারে । সিন্ধুর তরঙ্গধবনি অন্ধকারে গুমরিয়া উঠিতেছে জনশূন্ত বিশ্বের বিলাপে । ভূমিকম্পে বনস্থলী কাপে ; প্রচণ্ড নির্ঘোষে বহু তরুভার বহি বহুদূর মাটি যায় ধ্বসে গভীর পঙ্কের তলে । সেদিনের অন্ধ যুগে পীড়িত সে জলে স্থলে তুমি তুলেছিলে মাথা । বলিতে বন্ধলে তব গাথা সে ভীষণ যুগের আভাস ।