পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ঊনবিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৯১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বীথিক যেথা তব আদিবাস সে অরণ্যে একদিন মানুষ পশিল যবে দেখা দিয়েছিলে তুমি ভীতিরূপে তার অনুভবে। হে তুমি অমিত-আয়ু, তোমার উদ্দেশে স্তবগান করেছে সে । বাকাচোরা শাখা তব কত কী সংকেতে অন্ধকারে শঙ্কা রেখেছিল পেতে । বিরুত বিরূপ মূর্তি মনে মনে দেখেছিল তারা তোমার দুর্গমে দিশাহারা । আদিম সে আরণ্যক ভয় রক্তে নিয়ে এসেছিন্তু আজিও সে কথা মনে হয় । বটের জটিল মূল আঁকাবঁকা নেমে গেছে জলে— মসীকৃষ্ণ ছায়াতলে দৃষ্টি মোর চলে যেত ভয়ের কৌতুকে, দুরুহুরু বুকে ফিরাতেম নয়ন তখনি । যে মূর্তি দেখেছি সেথা শুনেছি যে ধ্বনি সে তো নহে আজিকার। বহু লক্ষ বর্ষ আগে স্থষ্টি সে তোমার । হে ভীষণ বনস্পতি, সেদিন যে নতি মন্ত্র পড়ি দিয়েছি তোমারে, আমার চৈতন্ততলে আজিও তা আছে এক ধারে । সন্ন্যাসী হে সন্ন্যাসী, হে গম্ভীর, মহেশ্বর, মন্দাকিনী প্রসারিল কত-না নিঝর তোমারে বেষ্টন করি নৃত্যজালে । ২ অগস্ট ১৯৩২ じr○