পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ঊনবিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৯৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রবীন্দ্র-রচনাবলী বাধনে বাধনে টানি রচিলে আসনখানি, দেখিম তোমার আপন স্বষ্টি তাই— শূন্ততা ছাড়ি স্বন্দরে তব আমার মুক্তি চাই । ৩ অগস্ট ১৯৩২ অপ্রকাশ মুক্ত হও হে স্বন্দরী ! ছিন্ন করো রঙিন কুয়াশা, অবনত দৃষ্টির আবেশ, এই অবরুদ্ধ ভাষা, এই অবগুষ্ঠিত প্রকাশ । সষত্ব লজ্জার ছায়া তোমারে বেষ্টন করি জড়ায়েছে অম্পষ্টের মায়া শতপাকে, মোহ দিয়ে সৌন্দর্ষেরে করেছে আবিল ; অপ্রকাশে হয়েছ অশুচি । তাই তোমারে নিখিল রেখেছে সরায়ে কোণে । ব্যক্ত করিবার দীনতায় নিজেরে হারালে তুমি, প্রদোষের জ্যোতিঃক্ষীণতায় দেখিতে পেলে না আজো আপনারে উদার আলোকে— বিশ্বেরে দেখ নি, ভীরু, কোনোদিন বাধাহীন চোখে উচ্চশির করি । স্বরচিত সংকোচে কাটাও দিন, আত্ম-অপমানে চিত্ত দীপ্তিহীন, তাই পুণ্যহীন । বিকশিত স্থলপদ্ম পবিত্র সে, মুক্ত তার হাসি, পূজায় পেয়েছে স্থান আপনারে সম্পূর্ণ বিকাশি ।