পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (একবিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১০৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


২১৭ ছড়ার ছবি মাঠের ধারে, অনভ্যাসের সেবার কাজে খেটে কেমল ক'রে কয়টা প্রহর কোথায় গেল কেটে । সমস্ত দিন ডাকল ঘুঘু ছটি, আশে পাশে এটোর লোভে কাক এল সব জুটি, গায়ের থেকে কুকুর এল, লড়াই গেল ৰেধে— একটা তাদের পালালো তার পরাভবের খেদে ৷ রেঙ্গ পড়ে এল ক্রমে, ছায়া পড়ল বেঁকে, ক্লাস্ত গোরু গাড়ি টেনে চলেছে হাট থেকে । আবার ধীরে ধীরে নিয়ম-বাধা যে-যার ঘরে চলে গেলেম ফিরে । একটা দিনের মুছল স্থতি, ঘুচল চড়িভাতি, পোড়াকাঠের ছাই পড়ে রয়, নামে আঁধার রাতি । কাশী কাশীর গল্প শুনেছিলুম ৰোগীনদাদার কাছে, পষ্ট মনে আছে । জামরা তখন ছিলাম না কেউ, বয়েস তাহার সবে বছর-অষ্টেক হবে । সঙ্গে ছিলেন খুড়ি, মোরব্বা বানাবার কাজে ছিল না তার জুড়ি । দাদা বলেন, আমলকি বেল পেঁপে সে তো আছেই, এমন কোনো ফল ছিল না এমন কোনো গাছেই তার হাতে রস জমলে লোকের গোল না ঠেকত— এটাই ফল হৰে কি মেঠাই । রসিয়ে নিয়ে চালতা যদি মুখে দিতেন গুজি মনে হত বড়োরকম রসগোলাই বুঝি। Գծ