পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (একবিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১৭৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Ꮌ8Ꮼ রবীন্দ্র-রচনাবলী বিক্রম। চুপ কর! দেবদত্ত, কে এদের এমন করে প্রশ্ৰয় দিচ্ছে। এরা বলপূর্বক আমার কাছ থেকে বিচার কেড়ে নিতে চায় ? দ্বারী কোথায় । দ্বারীর প্রবেশ দ্বারী। কী মহারাজ । বিক্রম । একে প্রহরীশালায় নিয়ে রাখো । কাল বিচার হবে। দ্বারী । যে আদেশ । রত্নেশ্বর। মহারানী, আমার আজকের দিন গেল, কালকের দিনকে বিশ্বাস নেই। বঁচি অণর মরি আমার যা-ছয় হোক, কিন্তু প্রজার অভিযোগ তোমার পায়ে রেখে গেলুম, তোমাকে সে তুলে নিতে হবে। আমি বিদায় নিলুম। সুমিত্রা । মনে রইল রত্নেশ্বর। [ দ্বারী ও রত্নেশ্বরের প্রস্থান নরেশ । মহারাজ, মন্ত্রী আমাকে দিয়ে কিছু সংবাদ পাঠিয়েছেন– আণ্ড মন্ত্রণার আবশ্যক | বিক্রম । তোমরা একটার পর আর-একটা উৎপাত নিজে সাজিয়ে অনিছ । নরেশ । উৎপাত স্বষ্টি করতে পারি এত শক্তি আমাদের আছে ? বিক্রম। স্বষ্টি করবার দরকার নেই। সত্যযুগেও রাজ্যে উৎপাতের অভাব ছিল না। কিন্তু উৎপাত ছড়িয়ে থাকে দেশে ও কালে । তোমরা তাদের আজই একদিনের মধ্যে পুঞ্জিত করে সাজিয়েছ। ষে-সমস্ত প্রমাণ তোমাদের মিত্রদের বেলায় থাকে বিক্ষিপ্ত, তোমাদের শক্ৰদের বেলা আজ তোমরা সেইগুলোকে সংহত করে কালো করে আমার সামনে ধরতে চাও— আজ উৎসবদিনের আলোর উপরে এই কালীমূর্তিকে দাড় করিয়ে কেবল এই কথাটা বলতে চাও, যে, তোমাদেরই জিত হল। তোমাদের এই সাজিয়ে-তোলা বিভীষিকার কাছে আমি হার মানব না এ কথা নিশ্চয় জেনো । উৎপাতের সংবাদ অাছে, থাক-না, নিশ্চয়ই সে আগামী কাল পর্যস্ত অপেক্ষা করতে পারে | নরেশ । অপেক্ষা করতে নিশ্চয় পারে, মহারাজ, কিন্তু আজ যা সংবাদ অাছে কাল তা সংকট হয়ে দাড়ায় । তবে যাই, মন্ত্রীকে জানাই গে । বিক্রম । ওরা আমার প্রিয়পাত্র, ওদের প্রতি আমার পক্ষপাত, ওদের বিচার আমি করতে পারি নে, ওদের শাস্তি দিতে আমি অক্ষম— তোমাদের এসব কথা মিথ্যা, মিথ্যা দণ্ডের যারা যোগ্য তাদের যখন দগু দেব তখন ভয়ে স্তন্ধ হয়ে যাবে। ক্ষীণ দুর্বল তোমরাই, কর্তব্যের তোমরা কী জান ! ক্ষমায় দয়ায় অশ্রুজলে তোমাদের