পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (একবিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১৯৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


তপতী * ఆ3 খোজে না, স্বভাবের ভিতরেই তার আশ্রয়। তোমার মর্যাদ উনি সহ করতে পারেন না, তার অহৈতুক উত্তেজনা ওঁর দীনতার মধ্যে। এ যে বিধাতার অভিশাপ। তার উপরে উনি মনে-মনে সন্দেহ করেন মহারানী স্বমিত্রা তোমার প্রশ্রয় পেয়েছেন বা তোমার প্রশ্রয় প্রার্থনা করতে এসেছেন । কুমারলেন। এতদিনেও কি জানেন না স্বমিত্রার পক্ষে তা অসম্ভব । নরেশ । জানবার শক্তি যদি থাকত তা হলে হারাবার দুর্ভাগ্য র্তার ঘটত না । ব্রাহ্মণগণের প্রবেশ পুরোহিত। মহারাজ, অভিষেকের কাজ এখনই আরম্ভ করা কর্তব্য । মনে হচ্ছে বিলম্বে বির হতে পারে। নানাপ্রকার জনশ্রুতি শোনা যাচ্ছে । কুমারলেন। অভিষেকের কাজ সংক্ষিপ্ত করে । বিলৰ সইবে না। পুরোহিত । চলো তবে মহারাজ, ওই অশ্বখবেদিকায় । সকলে জয়ধ্বনি করে । তুরী ভেরী শঙ্খধ্বনি সকলে । জয় মহারাজাধিরাজ কাশ্মীরাধিপতির জয় ! কুমারলেন । বাহিরে ওই কিসের কোলাহল । অনুচরদের প্রবেশ অনুচর। খুড়োমহারাজ হঠাৎ উপস্থিত । প্রহরীরা বলছে প্রাণ থাকতে তাকে এখানে প্রবেশ করতে দেবে না । তারা লড়াই করে মরতে প্রস্বত । জাদেশ করে। भशंद्भांछ । কুমারলেন । শাস্ত করে প্রহরীদের । খুড়োমহারাজকে অভ্যর্থনা করে নিয়ে এসো। [ অহচরদের প্রস্থান বিপাশা। আমরা তবে প্রচ্ছন্ন হই । [ নরেশ ও বিপাশার প্রস্থান চন্দ্রসেনের প্রবেশ একদল । কোথায় চলেছ চন্দ্রসেন। পাষণ্ড, কপট । কোথায় যাও ৰিশ্বাসঘাতক । ওকে বন্দী করো। * * কুমারলেন। থামে তোমরা । এ কেমন বুদ্ধি তোমাদের । উনি এসেছেন বিশ্বাস করে আমার কাছে।