পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (একাদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/২০১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গীতিমাল্য পথের ধারে ছায়াতরু নাই তো তাদের কথা, শুধু তাদের ফুল-ফোটানে। মধুর ব্যাকুলত । দিনের অালো হলে সারা অন্ধকারে সন্ধ্যাতারা শুধু প্রদীপ তুলে ধরে কয় না কিছু আর । শিলাইদহ ১৫ ফাঙ্কন ১৩২০ সন্ধ্য। কলিকাতায় যাত্রার পূর্বে \ჯუჯ) অামার ভাঙা পথের রাঙা ধুলায় পড়েছে কার পায়ের চিহ্ন । তারি গলার মালা হতে পাপড়ি হেথা লুটায় ছিন্ন । এল যখন সাড়াটি নাই, গেল চলে জানাল তাই, এমন করে আমারে হায় কে বা কাদায় সে জন ভিন্ন তখন তরুণ ছিল অরুণ-আলো, পথটি ছিল কুসুমকীর্ণ। বসন্ত যে রঙিন বেশে ধরায় সেদিন অবতীর্ণ । সেদিন খবর মিলল না ষে, রইই বসে ঘরের মাঝে, অাজকে পথে বাহির হব বহি আমার জীবন জীর্ণ। কুষ্টিয়ার মুখে। পালকি পথে »« कोशन [.७२०] >br>