পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (একাদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৪১৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রবীন্দ্র-রচনাবলী ويوج2 ؟

  • অমল। সেই ষে রোজ আমার কাছে এসে নানা দেশবিদেশের কথা বলে যায়—

শুনতে আমার ভারি ভালো লাগে । f মাধব দত্ত। কই আমি তো কোনো ফকিরকে জানি নে । । অমল। এই ঠিক তার আসবার সময় হয়েছে— তোমার পায়ে পড়ি, তুমি তাকে একবার বলে এসো-না, সে যেন আমার ঘরে এসে একবার বসে । ফকিরবেশে ঠাকুরদার প্রবেশ অমল। এই-যে, এই-যে ফকির— এসো আমার বিছানায় এসে বসে। মাধব দত্ত। এ কী । এ যে— ঠাকুরদা । ( চোখ ঠারিয়া ) আমি ফকির। মাধব দত্ত। তুমি যে কী নও তা তো ভেবে পাই নে ! অমল। এবারে তুমি কোথায় গিয়েছিলে ফকির ? ফকির। আমি ক্ৰৌঞ্চদ্বীপে গিয়েছিলুম— সেইখান থেকেই এইমাত্র আসছি। মাধব দত্ত। ক্ৰৌঞ্চদ্বীপে ? ফকির। এতে আশ্চর্য হও কেন ? তোমাদের মতো আমাকে পেয়েছ ? আমার তে৷ যেতে কোনো খরচ নেই। আমি যেখানে খুশি যেতে পারি। অমল । ( হাততালি দিয়া ) তোমার ভারি মজা । আমি যখন ভালো হব তখন তুমি আমাকে চেলা করে নেবে বলেছিলে, মনে আছে ফকির ? ঠাকুরদা। খুব মনে আছে। বেড়াবার এমন সব মন্ত্র শিখিয়ে দেব যে সমুত্রে পাহাড়ে অরণ্যে কোথাও কিছুতে বাধা দিতে পারবে না। মাধব দত্ত। এ-সব কী পাগলের মতো কথা হচ্ছে তোমাদের ! ঠাকুরদা। বাবা অমল, পাহাড়-পর্বত-সমুদ্রকে ভয় করি নে— কিন্তু তোমার এই পিসেটির সঙ্গে যদি আবার কবিরাজ এসে জোটেন তা হলে আমার মন্ত্রকে হার মানতে হবে । অমল। না, না, পিসেমশায়, তুমি কবিরাজকে কিছু বোলো না – এখন আমি এইখানেই শুয়ে থাকব, কিছু করব না— কিন্তু যেদিন আমি ভালো হব সেইদিনই আমি ফকিরের মন্ত্র নিয়ে চলে যাব— নদী-পাহাড়-সমুদ্রে আমাকে আর ধরে রাখতে পারবে না । মাধব দত্ত। ছি, বাবা, কেবলই অমন যাই-ষাই করতে নেই– শুনলে আমার মন কেমন খারাপ হয়ে যায়।