পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (চতুর্দশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১৩২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পূরবী কত মোর উৎসবের বাতি, আমার প্রাণের আশা, আমার গানের কত সাথি, দিবসেরে রিক্ত করি’, তিক্ত করি আমার রাত্রিরে। সেই হতে চিত্ত মোর নিয়েছে আশ্রয় তব তীরে । ওগো বৈতরণী, অদৃশ্বের উপকূলে থেমে গেছে যেথায় ধরণী সেথায় নির্জনে দেখি আমি আপনার মনে তোমার অরূপ-তলে সব রূপ পূর্ণ হয়ে ফুটে, সব গান দীপ্ত হয়ে উঠে, শ্রবণের পরপারে তব নিঃশব্দের কণ্ঠহারে । যে-সুন্দর বসেছিল মোর পাশে এসে ক্ষণিকের ক্ষীণ ছদ্মবেশে, যে চিরমধুর। ক্রতপদে চলে গেল নিমেষের বাজায়ে নূপুর, প্রলয়ের অন্তরালে গাহে তারা অনস্তের স্বর । চোখের জলের মতো একটি বর্ষণে যারা হয়ে গেছে গত, চিত্তের নিশীথ রাত্রে গাথে তারা নক্ষত্রমালিকা ; অনির্বাণ আলোকেতে সাজায় অক্ষয় দীপালিকা । বুয়েনোস এয়ারিস २१ नदख्षद्ध, >>२8 >> *