পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (চতুর্দশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১৫২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


यूबबैौ । হয়তো সে কোন সকালবেল শিশির-কলা পথে । জাগরণের কেতন তুলে আসবে সোনার রখে, কিম্বা পূর্ণ চাদের লগ্নে, বৃহস্পতির দশায় – দুঃখ আমার, আর সে যে হ’ক, নয় সে দাদামশায় । ২০ ডিসেম্বর, ১৯২৪ না-পাওয়া ওগো মোর না-পাওয়া গেী, ভোরের অরুণ-আভাসনে ঘুমে দুয়ে যাও মোর পাওয়ার পাখিরে ক্ষণে ক্ষণে । সহসা স্বপন টুটে” তাই সে যে গেয়ে উঠে, কিছু তার বুঝি নাহি বুঝি । তাই সে যে পাখা মেলে উড়ে যায় ঘর ফেলে, ফিরে আসে কারে খুজি খুজি । ওগো মোর না-পাওয়া গো, সায়াহ্নের করুণ কিরণে পূরবীতে ডাক দাও আমার পাওয়ারে ক্ষণে ক্ষণে । হিয়া তাই ওঠে কেঁদে, রাখিতে পারি না বেঁধে, অকারণে দূরে থাকে চেয়ে,— মলিন আকাশতলে যেন কোন খেয়া চলে, কে যে যায় সারি গান গেয়ে । »©ዓ