পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (চতুর্দশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১৫৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


为88 রবীন্দ্র-রচনাবলী তাহার গৌরবে লহ তোমারি স্পর্শের পরিচয়, আপনার চরম বারতা । তারি লাভে লাভ করো বিনা লোভে সম্পদ অক্ষয়, তারি ফলে তব সফলতা । সান ইসিড়ো ২৮ ডিসেম্বর, ১৯২৪ পথ আমি পথ, দূরে দূরে দেশে দেশে ফিরে ফিরে শেষে দুয়ার-বাহিরে থামি এসে ভিতরেতে গাথা চলে নানা স্বত্রে রচনার ধারা, আমি পাই ক্ষণে ক্ষণে তারি ছিন্ন অংশ অর্থহারা, সেথা হতে লেখে মোর খুলিপটে দীপরশ্মিরেখা অসম্পূর্ণ লেখা । জীবনের সৌধমাঝে কত কক্ষ কত না মহলা, তলার উপরে কত তলা । আজন্মবিধবা তারি এক প্রাস্তে রয়েছি একাকী, সবার নিকটে থেকে তবুও অসীম-দূরে থাকি, লক্ষ্য নহি, উপলক্ষ্য, দেশ নহি আমি যে উদ্দেশ, -r মোর নাহি শেষ । উৎসবসভায় যেতে যে পায় আহবান-পত্ৰখানি তাহারে বহন করে আনি । সে-লিপির খণ্ডগুলি মোর বক্ষে উড়ে এসে পড়ে, ধুলায় করিয়া লুপ্ত তাদের উড়ায়ে দিই ঝড়ে, অামি মালা গেথে চলি শত শত জীর্ণ শতাব্দীর

    • বহু বিস্মৃতির ।