পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (চতুর্দশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পূৱৰী শূন্তে নৰীন স্থৰ জাগে । ঐ যে তাহার বিশ্ব-চেতন কেতন-আগে জলছে নূতন দীপ্তিরতন তিমির-মথন শুভ্ররাগে ; মশাল-ভন্ম লুপ্তি-ধুলায় নিত্যদিনের স্বপ্তি মাগে । আনন্দলোক দ্বার খুলেছে, আকাশ পুলকময়, জয় ভূলোকের, জয় দু্যলোকের, জয় আলোকের জয় । মাটির ডাক শালবনের ঐ আঁচল বোপে ষেদিন হাওয়া উঠত খেপে ফাগুন-বেলার বিপুল ব্যাকুলতায়, যেদিন দিকে দিগন্তরে লাগত পুলক কী মস্তরে কচি পাতার প্রথম কলকথায়, সেদিন মনে হত কেন ঐ ভাষারি বাণী যেন লুকিয়ে আছে হৃদয়কুঞ্জছায়ে ; তাই অমনি নবীন রাগে কিশলয়ের সাড়া লাগে শিউরে-ওঠা আমার সারা গায়ে । আবার ষেদিন আশ্বিনেতে নদীর ধারে ফসল-খেতে স্থৰ-ওঠার রাঙ+ রঙিন বেলায় নীল আকাশের কুলে কুলে সবুজ সাগর উঠত ছলে কচি ধানের খামখেয়ালি খেলায়---