পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (চতুর্দশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/২০৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মুক্তধারা తిళీ মন্ত্রী। বলেছিলুম। তখন অবস্থা অন্তরকম ছিল, আমার মন্ত্রণ সময়োচিত হয়েছিল । কিন্তু এখন— রণজিং । যুবরাজকে শিবতরাইয়ে পাঠাবার ইচ্ছে আমার একেবারেই ছিল না। भङ्गेौ ।। ८कन यशंद्रांछ ? রণজিং। যে প্রজার দূরের লোক, তাদের কাছে গিয়ে ঘেঁষাৰ্ঘেষি করলে তাদের ভয় ভেঙে যায়। প্রীতি দিয়ে পাওয়া যায় আপন লোককে, পরকে পাওয়া যায় ভয় জাগিয়ে রেখে । মন্ত্রী। মহারাজ, যুবরাজকে শিবতরাইয়ে পাঠাবার আসল কারণটা ভুলছেন । কিছুদিন থেকে তার মন অত্যন্ত উতলা দেখা গিয়েছিল । আমাদের সন্দেহ হল যে, তিনি হয়তো কোনো স্থত্রে জানতে পেরেছেন যে তার জন্ম রাজবাড়িতে নয়, তাকে মুক্তধারার ঝরনাতলা থেকে কুড়িয়ে পাওয়া গেছে। তাই তাকে ভুলিয়ে রাখবার জন্তে— রণজিৎ । তা তো জানি—ইদানীং ও যে প্রায় রাত্রে একলা ঝরনাতলায় গিয়ে শুয়ে থাকত। খবর পেয়ে একদিন রাত্রে সেখানে গেলুম, ওকে জিজ্ঞাসা করলুম, “কী হয়েছে অভিজিং, এখানে কেন ?” ও বললে, “এই জলের শব্দে আমি আমার মাতৃভাষা শুনতে পাই ।” মন্ত্রী। আমি তাকে জিজ্ঞাসা করেছিলুম, “তোমার কী হয়েছে যুবরাজ ? রাজবাড়িতে আজকাল তোমাকে প্রায় দেখতে পাই নে কেন ?” তিনি বললেন, “আমি পৃথিবীতে এসেছি পথ কাটবার জন্তে, এই খবর আমার কাছে এসে পৌছেছে।” রণজিৎ । ওই ছেলের যে রাজচক্রবর্তীর লক্ষণ আছে এ বিশ্বাস আমার ভেঙে যাচ্ছে । মন্ত্রী । যিনি এই দৈবলক্ষণের কথা বলেছিলেন তিনি যে মহারাজের গুরুর গুরু অভিরামস্বামী । রণজিৎ । ভুল করেছেন তিনি। ওকে নিয়ে কেবলই আমার ক্ষতি হচ্ছে । শিবতরাইয়ের পশম যাতে বিদেশের হাটে বেরিয়ে না যায় এইজন্তে পিতামহদের আমল থেকে নন্দিসংকটের পথ আটক করা আছে। সেই পথটাই অভিজিং কেটে দিলে । উত্তরকুটের অন্নবস্ত্র দুমূল্য হয়ে উঠবে ষে । মন্ত্রী । অল্প বয়স কিনা। যুবরাজ কেবল শিবতয়াইয়ের দিক থেকেই— রণজিৎ । কিন্তু এ যে নিজের লোকের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ। শিবতরাইয়ের ওই ষে ধনঞ্জয় বৈরাগীট প্রজাদের খেপিয়ে বেড়ায়, এর মধ্যে নিশ্চয় সেও আছে। এবার কষ্টীস্থদ্ধ তার কণ্ঠটা চেপে ধরতে হবে। তাকে বন্দী করা চাই।