পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (চতুর্দশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৩৩১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রবীন্দ্র-রচনাবলী । טצלא তিরস্কৃত করেছেন,—কেবলই বিভাগ, কেবলই বাধা । বিশ্বের লোক গুরুর কাছে বলে যে দীক্ষা নেবে সে দীক্ষার মন্ত্র কোথায়, সে দীক্ষার অবারিত মন্দির কোথায় । সে জাহানবাণী কোথায় যে বাণী একদিন চারিদিকে এই বলে ধ্বনিত হয়েছিল— दषांनः यदठांवसेि पथ बांना अझ्खfब्रम् अष९ यां९ उक्रांब्रिप्शाषांउ स्रोब्रख् नर्वउः चांहीं । । DD DDDD DBDD DDBB DDD BBBS BBBDD DDD DBBD BBBD DB शांविड झ्छ, cठबबि मकज क्रूि इहेरङहे जक्रक्रांब्रिनं4 जांबांबू निकछे जांश्म, चाझा । কিন্তু সেই স্বভাবের পথ যে আজ রুদ্ধ। ধর্ম জ্ঞান সমাজ তাদের সিংহদ্বার বন্ধ করে বসে আছে—কেবল অস্তঃপুরের যাতায়াতের জন্তে খিড়কির দরজার ব্যবহার চলছে মাত্র । সত্যসম্পদের দারিদ্র্য না ঘটলে এমন দুৰ্গতি কখনোই হয় না। যে বলতে পেরেছে—বেদাহং, আমি জেনেছি, তাকে বেরিয়ে আসতেই হবে, তাকে বলতেই হবে—শৃশ্বস্তু বিশ্বে অমৃতস্ত পুত্রাঃ । এই রকম দৈন্তের নিবিড় অন্ধকারের মধ্যে সমস্ত দ্বার জানালা বন্ধ করে যখন ঘুমোচ্ছিলম এমন সময় একটি ভোরের পাখির কণ্ঠ থেকে আমাদের রুদ্ধ ঘরের মধ্যে বিশ্বের নিত্যসংগীতের স্বর এসে পৌঁছোল—যে স্বরে লোকলোকান্তর, যুগ-যুগান্তর স্বর মলিয়েছে, ষে-মুরে পৃথিবীর ধূলির সঙ্গে স্বৰ্ষ তারা একই আত্মীয়তার আনন্দে ঝংকৃত হয়েছে—সেই স্বর একদিন শোনা গেল । আবার যেন কে বললে—বেদাহমেতং, আমি একে জেনেছি। কাকে জেনেছ ? আদিত্যবর্ণং—জ্যোতির্ময়কে জেনেছি ধাকে কেউ গোপন করতে পারে না। জ্যোতির্ময় ? কই তাকে তো আমার গৃহসামগ্রীর মধ্যে দেখছি নে । না, তোমার অন্ধকার দিয়ে ঢেকে র্তাকে তোমার ঘরের মধ্যে চাপা দিয়ে রাখ নি। তাকে দেখছি তমস: পরস্তাং—তোমাদের সমস্ত রুদ্ধ অন্ধকারের পরপার হতে । তুমি যাকে তোমার সম্প্রদায়ের মধ্যে ধরে রেখেছ, পাছে আর কেউ সেখানে প্রবেশ করে বলে মন্দিরের দরজা বন্ধ করে দিয়েছ, সে যে অন্ধকার । নিখিল মানব সেখান থেকে ফিরে ফিরে যায়, স্বর্য চন্দ্র সেখানে দৃষ্টিপাত করে না। সেখানে জ্ঞানের স্থানে শাস্ত্রের বাক্য, ভক্তির স্থানে পূজাপদ্ধতি, কর্মের স্থানে অভ্যন্ত আচার। সেখানে দ্বারে একজন ভয়ংকর না’ ৰসে আছে, সে বলছে, না না, এখানে না—দূরে যাও, দূরে বাও । সে বলছে কান বন্ধ করে পাছে মন্ত্র কানে যায়, সরে বসে পাছে স্পর্শ লাগে, দরজা ঠেলে না পাছে তোমার দৃষ্টি পড়ে। এত না দিয়ে তুমি যাকে ঢেকে রেখেছ আমি সেই অন্ধকারের কথা বলছি নে । কিন্তু-বেদাহমেতং । আমি তাকে জেনেছি ধিনি নিখিলের ; ধাকে জানলে আর কাউকে