পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (চতুর্দশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৩৫৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ssર ब्रदौव-ब्रछबांबजौ এইজন্স, বাসনাগুলোকে ইচ্ছার শাসনাধীনে ঐক্যবদ্ধ করা যেমন মাছুষের ভিতরকার কামনা—সে-রকম না করতে পারলে সে যেমন কোনো সফলতা দেখত্তে পায় না তেমনি ইচ্ছাগুলিকেও কোনো এক প্রভূর অমুগত কৰা তার মূলগত প্রার্থনার বিষয়। এ না হলে সে ৰাচে না । বাহিরের শক্রকে জয় করবার জন্তে ভিতরের ষে সৈন্যদল সে জড় করলে নায়কের অভাবে সেই দুর্দান্ত সৈন্তগুলার হাতেই সে মারা পড়বার জো হয় । সৈন্তনায়ক রাজ্য দস্থ্যবিজিত রাজ্যের চেয়ে ভালো বটে, কিন্তু সেও স্বখের রাজ্য নয়। তামসিকতায় প্রবৃত্তির প্রাধান্ত, রাজসিকতায় শক্তির প্রাধান্ত । এখানে সৈন্তের রাজত্ব । কিন্তু রাজার রাজত্ব চাই । সেই সরাজকতার পরম কল্যাণ কখন উপভোগ করি ? যখন বিশ্বইচ্ছার সঙ্গে নিজের সমস্ত ইচ্ছাকে সংগত করি । cनझे इंधकांहे छञएडव्र ७क इंधह, यवल हेछझ । cन ८कदण चांयांद्र हेव्ह नब्र, কেবল তোমার ইচ্ছা নয়, সে নিখিলের মূলগত নিত্যকালের ইচ্ছা। সেই সকলের প্রভূ । সেই এক প্রভুর মহারাজ্যে যখন আমার ইচ্ছার সৈন্যদলকে দাড় করাই তখনই তারা ঠিক জায়গায় দাড়ায়। তখন ত্যাগে ক্ষতি হয় না, ক্ষমায় বীর্যহানি হয় না, সেবায় দাসত্ব হয় না। তখন বিপদ ভয় দেখায় না, শাস্তি দণ্ড দিতে পারে না, মৃত্যু বিভীষিকা পরিহার করে। একদিন সকলে আমাকে পেয়েছিল, অবশেষে রাজাকে যখন পেলুম তখন আমি সকলকে পেলুম। যে বিশ্ব থেকে নিজের অন্তরের দুর্গে আত্মরক্ষার জন্তে প্রবেশ করেছিলুম সেই বিশ্বেই আবার নির্ভয়ে বাহির হলুম, রাজার তৃত্যকে সেখানে সকলে সমাদর করে গ্রহণ করলে । * >> झॉसुन স্বাভাবিকী ক্রিয়া যে এক ইচ্ছা বিশ্বজগতের মূলে বিরাজ করছে তারই সম্বন্ধে উপনিষৎ বলেছেন— স্বাভাবিকী জ্ঞানবলক্রিয় চ। সেই একেরই জ্ঞানক্রিয়া এবং বলক্রিয়া স্বাভাবিকী। তা সহজ, তা স্বাধীন, তার উপরে বাইরের কোনো কৃত্রিম তাড়না নেই। . আমাদের ইচ্ছা যখন সেই মূল মঙ্গলইচ্ছার সঙ্গে সংগত হয় তখন তারও সমস্ত ক্রিয় স্বাভাবিকী হয়। অর্থাৎ তার সমস্ত কাজকে কোনো প্রবৃত্তির তাড়নার দ্বারা ঘটায় + ন+জহংকার তাকে ঠেলা দেয় না, লোকসমাজের অনুকরণ তাকে স্বটি করে না,