পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (চতুর্বিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১৩৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১২৬ রবীন্দ্র-রচনাবলী শেষ অভিসার আকাশে ঈশানকোণে মসীপুঞ্জ মেঘ । আসন্ন ঝড়ের বেগ স্তন্ধ রহে অরণ্যের ডালে ডালে যেন সে বাদুড় পালে পালে। নিষ্কম্প পল্লবঘন মৌনরাশি শিকার-প্রত্যাশী বাঘের মতন আছে খাবা পেতে, রন্ধহীন আঁধারেতে। বীণকে বাক উড়িয়া চলেছে কাক আতঙ্ক বহন করি উদ্বিগ্ন ডানার পরে । যেন কোন ভেঙে-পড়া লোকান্তরে ছিন্ন ছিন্ন রাত্রিখণ্ড চলিয়াছে উড়ে উচ্ছম্বল ব্যর্থতার শুষ্ঠতল জুড়ে। দুর্যোগের ভূমিকায় তুমি আজ কোথা হতে এলে এলোচুলে অতীতের বনগন্ধ মেলে। জন্মের আরম্ভপ্রান্তে আর-একদিন এসেছিলে অমান নবীন বসন্তের প্রথম দৃতিক, এনেছিলে আষাঢ়ের প্রথম যুথিকা অনির্বচনীয় তুমি। মর্মতলে উঠিলে কুসুমি অসীম বিস্ময়-মাঝে, নাহি জানি এলে কোথা হতে অদৃশু আলোক হতে দৃষ্টির আলোতে। তেমনি রহস্যপথে, হে অভিসারিকা, আজ আসিয়াছ তুমি ; ক্ষণদীপ্ত বিদ্যুতের শিখা