পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (চতুর্বিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১৮০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বাঁশরি ; ృుసి বঁাশরি। সোমশংকরের মুখের দিকে দেখে— মুখ না দুঃখ, বাধন পরছে না ছিড়ছে? আর পুরন্দর, সে যেন ঐ সূর্যেরই আলো । তার বৈজ্ঞানিক তত্ত্ব রয়েছে লক্ষ যোজন দূরে, মেয়েটার মনে যে অগ্নিকাও চলছে তার সঙ্গে কোনো যোগই নেই। অথচ তাকে ঘিরে একটা জলন্ত ছবি বানিয়ে দিলে। ক্ষিতীশ । সুষমার পরে সন্ন্যাসীর মন এতই যদি নির্লিপ্ত তবে ওকেই বেছে নিলে কেন । 鸣 বঁাশরি। ও যে আইডিয়ালিস্ট, বাস রে ; এতবড়ো ভয়ংকর জীব জগতে নেই। আফ্রিকার অসভ্য মারে মানুষকে নিজে খাবে বলে । এরা মারে তার চেয়ে অনেক বেশি সংখ্যায়। খায় না খিদে পেলেও । বলি দেয় সারে সারে, জেঙ্গিসর্থার চেয়ে সর্বনেশে । ক্ষিতীশ । সন্ন্যাসীর পরে তোমার মনে মনে ভক্তি আছে বলেই তোমার ভাষা এত তীব্র । বঁাশরি। যাকে-তাকে ভক্তি করতে না পেলে বঁাচে না যে-সব হ্যাংলা মেয়ে আমি তাদের দলে নই গো। রাজরানী যদি হতুম মেয়েদের চুলে দড়ি পাকিয়ে ওকে দিতুম ফাসি। কামিনীকাঞ্চন ছোয় ন-ষে তা নয়, কিন্তু তাকে দেয় ফেলে ওর কোন এক জগন্নাথের রথের তলায়, বুকের পাজর যায় গুড়িয়ে। ক্ষিতীশ । ওর আইডিয়াটা কী জানা চাই তো । বঁাশরি। সে আছে বাওয়ান্ন বঁাও জলের নীচে । তোমার এলাকার বাইরে, সেখানে তোমার মন্দাকিনী-পদ্মাবতীর ডুবৰ্মাতার চলে না। আভাস পেয়েছি কোন ডাকঘর-বিবর্জিত দেশে ও এক সংঘ বানিয়েছে, তরুণতাপসসংঘ, সেখানে নানা পরীক্ষায় মানুষ তৈরি হচ্ছে । ক্ষিতীশ । কিন্তু, তরুণী ? বঁাশরি। ওর মতে গৃহেই নারী, কিন্তু পথে নয়। ক্ষিতীশ । তা হলে সুষমাকে কিসের প্রয়োজন। বঁাশরি। অন্ন চাই-যে। মেয়ের প্রহরণধারিণী না হোক বেড়িহাত-ধারিণী তে৷ বটে। রাজভাণ্ডারের চাবিটা থাকবে ওরই হাতে। ঐ-যে ওরা বেরিয়ে আসছে, অনুষ্ঠান শেষ হল বুঝি । 函 পুরন্দর ও অন্য সকলে বেরিয়ে এল ঘর থেকে পুরন্দর। (সোমশংকর ও সুষমাকে পাশাপাশি দাড় করিয়ে ) তোমাদের মিলনের শেষ কথাটা ঘরের দেয়ালের মধ্যে নয় বাইরে, বড়ো রাস্তার সামনে । স্বযম