পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (চতুর্বিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/২০০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বাঁশরি - ১৮৯ স্বীমা । আচ্ছা করব। আমি যাই, কিন্তু ভুলো না আমার কথা । বঁাশরি। তুইও ভুলিস না আমার কথা, আর নিয়ে যা এক বাক্স চকোলেট, কাউকে বলিস নে আমি দিয়েছি । স্বীমা । কেন । বঁাশরি। মা জানতে পারলে রাগ করবেন। স্বীমা । কেন । বঁাশরি। যদি তোর অমুখ করে। স্বৰ্ষীমা । বলব না, কিন্তু খেতে দেব শংকরদাদাকেও । [ সুমীমার প্রস্থান একখানা খাতা হাতে নিয়ে বঁাশরি সোফায় হেলান দিয়ে বসল লীলার প্রবেশ বঁাশরি। দেখ লীলা, মুখ গম্ভীর করে আসিস নে ভাই, তা হলে ঝগড়া হয়ে যাবে। মনে হচ্ছে সাত্বনা দেবার কুমতলব আছে, বাদল নামল বলে। দুঃখ আমার সয়, সাত্ত্বনা আমার সয় না, সে তোদের জানা । বসেছিলেম গ্রামোফোনে কমিক গান বাজাতে কিন্তু তার চেয়ে কমিক জিনিস নিয়ে পড়েছি । লীলা । কী বলো তো বাশি । বঁাশরি। ক্ষিতীশের এই গল্পখানা। লীলা । (খাতাটা তুলে নিয়ে) ‘ভালোবাসার নিলাম – নামটা চলবে বাজারে। বঁাশরি। বস্তুটাও । এ জিনিসের কাটতি আছে। পড়তে চাস ? লীলা। না ভাই, সময় নেই, বিয়েবাড়ি সাজাবার জন্তে ডাক পড়েছে। বাশরি। আমি কি সাজাতে পারতুম না! লীলা । আমার চেয়ে অনেক ভালো পারতিস । বঁাশরি। ডাকতে সাহস হল না ! ভীরু ওরা। লীলা । তা নয়, লজ্জা হল, কী বলে তোকে ডাকবে । বঁাশরি। না ডেকেই লজ্জা দিলে আমাকে । ভাবছে আমি অন্নজল ছেড়ে ঘরে দরজা দিয়ে কেঁদে মরছি। ওদের সঙ্গে যখন তোর দেখা হবে কথাপ্রসঙ্গে বলিস, ‘র্বাশি বিছানায় শুয়ে কমিক গল্প পড়ছিল, পেট ফেটে যাচ্ছিল হেসে হেসে । নিশ্চয় বলিস। . লীলা । নিশ্চয় বলব, গল্পের বিষয়টা কী বল দেখি ।