পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (চতুর্বিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৪৭৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রবীন্দ্র-রচনাবলী راه 8 প্রজাপতি প্রবাসী ১৩৪৬ বৈশাখ প্রবীণ প্রবাসী ১৩৪৫ পৌষ রাত্রি প্রবাসী ১৩৪৬ মাঘ ‘উদবোধন কবিতাটির যে পাঠ সাময়িক পত্রে প্রকাশিত হইয়াছিল তাহা অপেক্ষাকৃত সংক্ষিপ্ত ছিল। উক্ত পাঠ অনুসারে, নিম্নোদ্ধত নূতন চারিটি ছত্রের অনুবৃত্তিস্বরূপ নবজাতকে মুদ্রিত পাঠের শেষ একাদশ ছত্র (পৃ. ৭ ) পড়িতে হইবে— শুকতারকার প্রথম প্রদীপ হাতে অরুণ-আভাস-জড়ানো ভোরের রাতে আমি এসেছিন্ন তোমারে জাগাব ব’লে তরুণ অালোর কোলে— কবিতাটির আরম্ভের কুড়িটি ছত্র, রবীন্দ্রসদনে-রক্ষিত পাণ্ডুলিপি অনুসারে, ১৯৩৮ সালের ১৩ অক্টোবর তারিখে শান্তিনিকেতনে স্বতন্ত্র কবিতা-আকারে প্রথম লিখিত হইয়াছিল বলিয়া মনে হয়। সেই আকারে উহা দ্বিতীয়সংস্করণ গীতবিতানের ভূমিকা রূপে মুদ্রিত হইয়াছিল। প্রায়শ্চিত্ত কবিতাটির পূর্বতন একটি পাঠ রবীন্দ্রসদনের পাণ্ডুলিপিতে নিম্নরূপ পাওয়া যায়— বহু শত শত বৎসর ব্যাপি শত শত দিনে রাতে দৈন্তের আর স্পর্ধার সংঘাতে ধিকি ধিকি করে ব্যাপ্ত হয়েছে পাপের দহনজালা সভ্যনামিক পাতালপুরীতে যেখানে যক্ষশালা। মাঝে মাঝে তারি ঝলক লেগেছে আতিশয্যের পরে, ভাগ্যের তাহা মহিমা বলিয়া জেনেছে গর্বভরে । মুখস্বপ্নের নিশীথে উঠিল ভূমিকম্পের রোল—