পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (চতুর্বিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৫২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


নবজাতক। সাড়ে নটা সাড়ে নটা বেজেছে ঘড়িতে ; সকালের মৃদু শীতে তন্দ্রাবেশে হাওয়া যেন রোদ পোহাইছে পাহাড়ের উপত্যক-নীচে বনের মাথায় সবুজের আমন্ত্রণ-বিছানো পাতায় । বৈঠকখানার ঘরে রেডিয়োতে সমুদ্রপারের দেশ হতে আকাশে প্লাবন আনে সুরের প্রবাহে, বিদেশিনী বিদেশের কণ্ঠে গান গাহে বহু যোজনের অন্তরালে । সব তার লুপ্ত হয়ে মিলেছে কেবল স্বরে তালে। দেহহীন পরিবেশহীন গীতস্পর্শ হতেছে বিলীন সমস্ত চেতনা ছেয়ে । যে বেলাটি বেয়ে এল তার সাড়া সে আমার দেশের সময়-স্বত্র-ছাড়া । একাকিনী, বহি রাগিণীর দীপশিখা আসিছে অভিসারিক সর্বভারহীনা ; অরূপা সে, অলক্ষিত আলোকে আসীন । গিরিনদীসমুদ্রের মানে নি নিষেধ, করিয়াছে ভেদ পথে পথে বিচিত্র ভাষার কলরব, পদে পদে জন্ম-মৃত্যু বিলাপ-উৎসব। রণক্ষেত্রে নিদারুণ হানাহানি, লক্ষ লক্ষ গৃহকোণে সংসারের তুচ্ছ কানাকানি, 8?