পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (তৃতীয় খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১৩৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১২০ রবীন্দ্র-রচনাবলী অপূর্ব গীত, অলোক ছন্দ শুনিছে নিত্য নব । বাজুক সে বীণা, মজুক ধরণী, বারেকের তরে ভূলাও জননী, কে বড়ো কে ছোটো কে দীন কে ধনী, কেবা আগে কেবা পিছে, কার জয় হল কার পরাজয়, কাহার বৃদ্ধি, কার হল ক্ষয়, * কেবা ভালো, আর কেবা ভালো নয়, কে উপরে কেবা নিচে । গাথা হয়ে যাক এক গীতরবে ছোটো জগতের ছোটো-বড়ো সবে, সুখে পড়ে রবে পদপল্পবে যেন মালা একখানি । তুমি মানসের মাঝখানে আসি দাড়াও মধুর মুরতি বিকাশি, কুন্দবরন সুন্দর হাসি বীণাহাতে বীণাপাণি । ভাসিয়া চলিবে রবিশশীতারা, সারি সারি যত মানবের ধারা, অনাদিকালের পান্থ যাহারা, তব সংগীতস্রোতে । দেখিতে পাইব ব্যোমে মহাকাল ছন্দে ছন্দে বাজাইছে তাল, দশ দিকৃবধু খুলি কেশজাল নাচে দশ দিক হতে।” এতেক বলিয়া ক্ষণপরে কবি করুণ কথায় প্রকাশিল ছবি পুণ্যকাহিনী রঘুকুলরবি রাঘবের ইতিহাস ।