পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (তৃতীয় খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১৪১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সোনার তরী ধরণীর তলে, গগনের গায়, সাগরের জলে, অরণ্য-ছায় আরেকটুখানি নবীন আভায় রঙিন করিয়া দিব । ংসারমাঝে দু-একটি স্বর রেখে দিয়ে যাব করিয়া মধুর, দু-একটি কাটা করি দিব দূর— তার পরে ছুটি নিব। মুখহাসি আরো হবে উজ্জল, স্বন্দর হবে নয়নের জল, স্নেহস্থধামাখা বাসগৃহতল আরো আপনার হবে । প্রেয়সী নারীর নয়নে অধরে আরেকটু মধু দিয়ে যাব ভরে, আরেকটু স্নেহ শিশুমুখ পরে শিশিরের মতো রবে । না পারে বুঝাতে আপনি না বুঝে মানুষ ফিরিছে কথা খুঁজে খুজে, কোকিল যেমন পঞ্চমে কুজে মাগিছে তেমনি স্থর ; কিছু ঘুচাইব সেই ব্যাকুলত, কিছু মিটাইব প্রকাশের ব্যথা, বিদায়ের আগে দু-চারিটা কথা রেখে যাব স্বমধুর। থাকো হৃদাসনে জননী ভারতী, তোমারি চরণে প্রাণের আরতি, চাহি না চাহিতে আর কারো প্রতি, রাখি না কাহারো আশা। কত স্থখ ছিল হয়ে গেছে দুখ, কত বান্ধব হয়েছে বিমুখ, ১২৭