পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (তৃতীয় খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১৬৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সোনার তরী বলো দেখি মোরে শুধাই তোমায়, অপরিচিতা,— ওই যেথা জলে সন্ধ্যার কুলে দিনের চিতা, বালিতেছে জল তরল অনল, গলিয়া পড়িছে অম্বরতল, দিকৃবধু যেন ছলছল-জাখি অশ্রািজলে, হোথায় কি আছে আলয় তোমার উমিমুখর সাগরের পার, মেঘচুম্বিত অস্তগিরির চরণতলে । তুমি হাস শুধু মুখপানে চেয়ে কথা না বলে । হুহু করে বায়ু ফেলিছে সতত দীর্ঘশ্বাস । অন্ধ আবেগে করে গর্জন জলোচ্ছ্বাস । সংশয়ময় ঘননীল নীর, কোনো দিকে চেয়ে নাহি হেরি তীর, অসীম রোদন জগৎ প্লাবিয়া இ দুলিছে যেন ; তারি পরে ভাসে তরণী হিরণ, তারি পরে পড়ে সন্ধ্যাকিরণ, তারি মাঝে বসি এ নীরব হাসি হাসিছ কেন । আমি তো বুঝি না কৗ লাগি তোমার বিলাস হেন। (t)