পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (তৃতীয় খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/২৫৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গোড়ায় গলদ ২৩৭ বিনোদবিহারী । বাস্তবিক – বর মনোনীত করবার সময় যেমন জিজ্ঞাসা করে, কটি পাশ আছে, কনে বাছবার সময় তেমনি খোজ নেওয়া উচিত ক-টি ভগ্নী আছে । চন্দ্রকাস্ত। চোর পালালে বুদ্ধি বাড়ে – ঠিক বিয়ের দিনটিতে বুঝি তোমার চৈতন্য হল ? তা তোমারও একটি অাছে শুনেছি তার নামটি হচ্ছে ইন্দুমতী— স্বভাবের পরিচয় ক্রমে পাবে । নিমাই । ( স্বগত ) র্যাকে আমার স্বন্ধের উপরে উদ্যত করা হয়েছে— সর্বনাশ আর কী ! শ্ৰীপতি । এদিকে যে বেরোবার সময় হয়ে এল তা দেখছ ? এতক্ষণ কী যে হল তার ঠিক নেই ! নিদেন ইংরেজ ছোড়াগুলোর মতো খুব খানিকটা হো হা করতে পারলেও আসর গরম হয়ে উঠত । খানিকটা চেচিয়ে বেস্করো গান গাইলেও একটু জমাট হত— ( উচ্চৈঃস্বরে ) “আজ তোমায় ধরব চাদ আঁচল পেতে ।” চন্দ্ৰকান্ত । আরে থাম থাম— তোর পায়ে পড়ি ভাই, থাম ; দেখ, আর্য ঋষিগণ যে রাগরাগিণীর স্বষ্টি করেছিলেন সে কেবল লোকের মনোরঞ্জনের জন্তে— কোনো রকম নিষ্ঠুর অভিপ্রায় তাদের ছিল না । ভূপতি । এস তবে বরকনের উদ্দেশে থী চিয়াস দিয়ে বেরিয়ে পড়া যাক— হিপ হিপ রে— 戲 চন্দ্রকাস্ত । দেখো, আমার প্রিয় বন্ধুর বিয়েতে আমি কখনোই এ রকম অনাচার হতে দেব না ; শুভকর্মে অমন বিদেশী শেয়াল-ডাক ডেকে বেরোলে নিশ্চয় অযাত্রা হবে। তার চেয়ে সবাই মিলে উলু দেবার চেষ্টা করো না ! ঘরে একটিমাত্র স্ত্রীলোক আছেন তিনি শাখ বাজাবেন এখন । আহা, এই সময়ে থাকত তার গুটি দুই-তিন সহোদরা তা হলে কোকিলকণ্ঠের উলু শুনে আজ কান জুড়িয়ে যেত । বিনোদবিহারী । তা হলে তোমার দুটি কান সামলাতেই দিন বয়ে যেত । ভূপতি। বিনোদ তবে ওঠে, সময় হল ! 啤 নলিনাক্ষ । এই তবে আমাদের অবিবাহিত বন্ধুত্বের শেষ মিলন। জীবনস্রোতে তুমি এক দিকে যাবে আমি এক দিকে যাব। প্রার্থনা করি, তুমি মুখে থাকো । কিন্তু মুহূর্তের জন্যে ভেবে দেখো বিহু, এই মরুময় জগতে তুমি কোথায় যাচ্ছ— চন্দ্রকান্ত । বিহু, তুই বল, মা, আমি তোমার জন্তে দাসী আনতে যাচ্ছি। তা হলে কনকাঞ্জলিটা হয়ে যায় । o শ্ৰীপতি। এইবার তবে উলু আরম্ভ হোক ।