পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (তৃতীয় খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/২৯১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গোড়ায় গলদ ২৭১ শুনে বড়ো আনন্দ হল । তা হলে একবার আমার মেয়েকে তার মতটা জিজ্ঞাসা করে আসি । তোমরা শিক্ষিত লোক, বুঝতেই পার, বয়ঃপ্রাপ্ত মেয়ে, তার সন্মতি না নিয়ে তাকে বিবাহ দেওয়া যায় না । নিমাই । তা অবশ্য । নিবারণ। তা হলে আমি একবার আসি । চন্দ্রবাবুদের এই ঘরে ডেকে দিয়ে যাই । [ প্রস্থান শিবচরণের প্রবেশ শিবচরণ। তুই এখানে বসে রয়েছিস, আমি তোকে পৃথিবীমৃদ্ধ খুজে বেড়াচ্ছি । নিমাই । কেন বাবা । শিবচরণ। তোকে যে আজ তারা দেখতে অসেবে । নিমাই । কারা । শিবচরণ। বাগবাজারের চৌধুরীরা। নিমাই । কেন । শিবচরণ। কেন ! ন-দেখে না-শুনে আমনি ফস করে বিয়ে হয়ে যাবে ? তোর বুঝি আর সবুর সইছে না ? নিমাই । বিয়ে কার সঙ্গে হবে । শিবচরণ। ভয় নেই রে বাপু, তুই যাকে চাস তারই সঙ্গে হবে । আমার ছেলে হয়ে তুই যে এত টাকা চিনেছিস তা তো জানতুম না ; তা সেই বাগবাজারের ট্যাকশালের সঙ্গেই তোর বিয়ে স্থির করে এসেছি । নিমাই । সে কী বাবা । আপনার মতের বিরুদ্ধে আমি বিয়ে করতে চাইনে— বিশেষ, আপনি নিবারণবাবুকে কথা দিয়েছেন— শিবচরণ । ( অনেকক্ষণ স্থা করিয়া নিমাইয়ের মুখের দিকে নিরীক্ষণ ) তুই খেপেছিস না আমি খেপেছি আমাকে কে বুঝিয়ে দেবে! কথাটা একটু পরিষ্কার করে বল, আমি ভালো করে বুঝি । নিমাই । আমি সে চৌধুরীদের মেয়ে বিয়ে করব না। শিবচরণ। চৌধুরীদের মেয়ে বিয়ে করবিনে ! তবে কাকে করবি ! নিমাই । নিবারণবাবুর মেয়ে ইন্দুমতীকে । শিবচরণ । ( উচ্চৈঃস্বরে ) কী ! হতভাগা পাজি লক্ষ্মীছাড়া বেটা ! যখন ইন্দুমতীর সঙ্গে তোর সম্বন্ধ করি তখন বলিস কাদম্বিনীকে বিয়ে করবি, আবার যখন && (ك\-سس-C\