পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (তৃতীয় খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৩৩৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চোখের বালি 9\ צפא আশা কহিল, "ঠাকুরপোর জলখাবারের বন্দোবস্ত করিয়া দিই গে।” একটা কিছু কর্ম করিবার উপলক্ষ্য আসিয়া উপস্থিত হওয়াতে আশার অবসাদ কতকটা লঘু হইয়া গেল । আশা শাশুড়ীর সংবাদ জানিবার জন্য মাথায় কাপড় দিয়া দাড়াইয়া রহিল। বিহারীর সহিত এখনো সে কথা কয় না । বিহারী প্রবেশ করিয়াই কহিল, “আ সর্বনাশ। কী কবিত্বের মাঝখানেই পা ফেলিলাম। ভয় নাই বোঠান, তুমি বসে, আমি পালাই ।” আশা মহেন্দ্রের মুখে চাহিল। মহেন্দ্র জিজ্ঞাসা করিল, “বিহারী, মার কী খবর ।” বিহারী কহিল, "মা-খুড়ীর কথা আজ কেন ভাই । সে ঢের সময় আছে। Such a night was not made for sleep, nor for mothers and aunts t” বলিয়া বিহারী ফিরিতে উদ্যত হইলে, মহেন্দ্র তাহাকে জোর করিয়া টানিয়া আনিয়া বসাইল । বিহারী কহিল, “বোঠান, দেখো আমার অপরাধ নাই— আমাকে জোর করিয়া আনিল— পাপ করিল মহিনদা, তাহার অভিশাপটা আমার উপরে যেন না পড়ে ।* কোনো জবাব দিতে পারে না বলিয়াই এই সব কথায় আশা অত্যস্ত বিরক্ত হয় । বিহারী ইচ্ছা করিয়া তাহাকে জালাতন করে । বিহারী কহিল, “বাড়ির শ্ৰী তো দেখিতেছি— মাকে এখনো আনাইবার কি সময় হয় নাই ।” 螺 মহেন্দ্ৰ কহিল, “বিলক্ষণ । আমরা তো তার জন্যই অপেক্ষা করিয়া আছি।” বিহারী কহিল, “সেই কথাটি তাহাকে জানাইয়া পত্র লিখিতে তোমার অল্পই সময় লাগিবে, কিন্তু তাহার হুখের সীমা থাকিবে না। বোঠান, মহিনদাকে সেই দু-মিনিট ছুটি দিতে হইবে, তোমার কাছে আমার এই আবেদন।” আশা রাগিয়া চলিয়া গেল— তাহার চোখ দিয়া জল পড়িতে লাগিল । মহেন্দ্ৰ কহিল, "কী শুভক্ষণেই যে তোমাদের দেখা হইয়াছিল। কিছুতেই সন্ধি হইল না— কেবলি ঠুকঠাক চলিতেছে।” বিহারী কহিল, “তোমাকে তোমার মা তো নষ্ট করিয়াছেন, আবার স্ত্রীও নষ্ট করিতে বসিয়াছে। সেইটে দেখিতে পারি না বলিয়াই সময় পাইলে দুই-এক কথা বলি ।” । भटङ्ञ । उाइएउ कण को इम्न । বিহারী । ফল তোমার সম্বন্ধে বিশেষ কিছুই হয় না, আমার সম্বন্ধে কিঞ্চিৎ হয়।