পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (তৃতীয় খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৪২৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


8-8 রবীন্দ্র-রচনাবলী ङिनि षनि डांश *ांrग्न ८ठेलिब्रां एलन, डट्य श्रांघि यांद्र रौीठिय न । श्रांभि जांभांद्र মাসিমার মতো পুণ্যবতী নই, তোমাকে আশ্রয় করিয়া আমি রক্ষা পাইব না।” এই বলিয়া অাশা বার বার বিছানার উপর গড় করিয়া প্ৰণাম করিল। আশার জেঠামশায়ের ফিরিবার সময় হইল। বিদায়ের পূর্বসন্ধ্যায় অন্নপূর্ণ আশাকে আপনার কোলে বসাইয়া কহিলেন, "চুনি, ম আমার, সংসারের শোকদুঃখ-অমঙ্গল হইতে তোকে সর্বদা রক্ষা করিবার শক্তি আমার নাই। আমার এই উপদেশ, যেখান থেকে যত কষ্টই পাস, তোর বিশ্বাস তোর ভক্তি স্থির রাখিস, তোর ধর্ম যেন অটল থাকে।” আশা তাহার পায়ের ধুলা লইয়া কহিল, “আশীবাদ করো মাসিম, তাই হইবে।” ‘Le আশা ফিরিয়া আসিল । বিনোদিনী তাহার পরে খুব অভিমান করিল—“বলি, এতদিন বিদেশে রহিলে, একখানা চিঠি লিখিতে নাই ?” আশা কহিল, “তুমিই কোন লিখিলে ভাই, বালি ।” বিনোদিনী । আমি কেন প্রথমে লিখিব । তোমারই তো লিখিবার কথা । আশা বিনোদিনীর গলা জড়াইয়া ধরিয়া নিজের অপরাধ স্বীকার করিয়া লইল । কহিল, “জান তো ভাই, আমি ভালো লিখিতে জানি না । বিশেষ, তোমার মতো পণ্ডিতের কাছে লিখিতে আমার লজ্জা করে ।” দেখিতে দেখিতে দুই জনের বিবাদ মিটিয়া গিয়া প্রণয় উদবেলিত হইয়া উঠিল । বিনোদিনী কহিল, ‘দিনরাত্রি সঙ্গ দিয়া তোমার স্বামীটির অভ্যাস তুমি একেবারে খারাপ করিয়া দিয়াছ । একটি কেহ কাছে নহিলে থাকিতে পারে ন৷ ” আশা । সেইজন্যই তো তোমার উপরে ভার দিয়া গিয়াছিলাম । কেমন করিয়া সঙ্গ দিতে হয়, আমার চেয়ে তুমি ভালো জান । বিনোদিনী । দিনটা তো একরকম করিয়া কলেজে পাঠাইয়া নিশ্চিস্ত হইতাম, কিন্তু সন্ধ্যাবেলায় কোনোমতেই ছাড়াছুড়ি নাই—গল্প করিতে হইবে, বই পড়িয়া শুনাইতে হইবে, আবদারের শেষ নাই । আশা। কেমন জন্ম। লোকের মন ভুলাইতে যখন পার তখন লোকেই বা ছাড়িবে কেন । বিনোদিনী । সাবধান থাকিস, ভাই । ঠাকুরপে যে-রকম বাড়াবাড়ি করেন, এক-একবার সন্দেহ হয়, বুঝি বশ করিবার বিদ্যা জানি বা ।