পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (তৃতীয় খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৫৯৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


é१३ . . ब्ररौद्य-ब्रहनांबलौ ৰথাই ৰলিতেছি । জামি ৰলিতেছি, গৰমেন্টের সঙ্গে আমাজের ভদ্ররূপ সম্বন্ধ স্বাপনেরই সছুপায় করা উচিত। ভাসম্বন্ধমাত্রেরই মাঝখানে একটা স্বাধীনতা আছে। যে-সম্বন্ধ আমার ইচ্ছা-অনিচ্ছার কোনো অপেক্ষাই রাখে না তাহা দাসত্বের সম্বন্ধ, ऊांश उभ* कब्र शहे८ङ 4य९ ७कनेिन श्छि श्हें८ङ बां५j । किरू चांथौन श्रांगांमপ্রদানের সম্বন্ধ ক্রমশই ঘনিষ্ঠ হইয়া উঠে । i আমরা অনেক কল্পনা করি এবং বলিয়াও থাকি যে, আমরা যাহা-কিছু চাহিতেছি সরকার যদি তাহা সমস্ত পূরণ করিয়া দেন, তাহা হইলে আমাদের প্রীতি ও সত্তোষের অস্ত থাকে না । এ-কথা সম্পূর্ণ অমূলক। এক পক্ষে কেবলই চাওয়া, আর-এক পক্ষে কেবলই দেওয়া, ইহার অন্ত কোথায় । ঘৃত দিয়া আগুনকে কোনোদিন নিৰানো যায় না, সে তো শাস্ত্রেই বলে— এরূপ দাতা-ভিক্ষুকের সম্বন্ধ ধরিয়া যতই পাওয়া যায়, বদান্ততার উপরে দাবি ততই বাড়িতে থাকে এবং অসন্তোষের পরিমাণ ততই আকাশে চড়িয়া উঠে । যেখানে পাওয়া আমার শক্তির উপরে নির্ভর করে না, দাতার মহত্ত্বের উপরে নির্ভর করে, সেখানে আমার পক্ষেও যেমন অমঙ্গল দাতার পক্ষেও তেমনি অসুবিধা । কিন্তু, যেখানে বিনিময়ের সম্বন্ধ, দানপ্রতিদানের সম্বন্ধ, সেখানে উভয়েরই মঙ্গল— সেখানে দাবির পরিমাণ স্বভাবতই ভাষ্য হুইয়া আসে এবং সকল কথাই আপসে মিটিবার সম্ভাবনা থাকে। দেশে এরূপ ভদ্র অবস্থা ঘটিবার একমাত্র উপায়, স্বাধীন শক্তিকে দেশের মঙ্গলসাধনের ভিত্তির উপরে সমাজে প্রতিষ্ঠিত করা। এক কতৃশক্তির সঙ্গে অন্ত কতু শক্তির সম্পর্কই শোভন এবং স্থায়ী, তাহা আনন্দ এবং সম্মানের আকর । ঈশ্বরের সহিত সম্বন্ধ পাতাইতে গেলে নিজেকে জড়পদার্থ করিয়া তুলিলে চলে না, নিজেও এক স্থানে ঈশ্বর इहे८ऊ झग्न । তাই আমি বলিতেছিলাম, গৰমেন্টের কাছ হইতে আমাদের দেশ স্বতদুর পাইবার তাহার শেষ কড়া পৰম্ভ পাইতে পারে, যদি দেশকে আমাদের যতদূর পর্যন্ত দ্বিৰায় তাহার শেষ কড়া পর্যন্ত শোধ করিয়া দিতে পারি। যে-পরিমাণেই দিব সেই পরিমাণেই পাইবার সম্বন্ধ দৃঢ়তর হইবে। д এমন কথা উঠিতে পারে যে, আমরা দেশের কাজ করিতে গেলে প্রবল পক্ষ मुनि दांथां प्मन । . ८षर्थांप्न छूहे *क यां८छ् ७द९ फूहे नएकबू नकल चांर्ष निभान नएझ, সেখানে কোনো বাধা পাইব না, ইহা হইতেই পারে না । কিন্তু, তাই বলিয়া সকল কমে ই হাল ছাড়িয়া দিতে হইবে, এমন কোনো কথা নাই । ষে-ব্যক্তি যথার্থ ই কাজ করিতে চায়, তাহাকে শেষ পর্যন্ত বাধা দেওয়া বড়ো শক্ত । এই মনে করে।