পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (তৃতীয় খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৭৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সোনার তরী দিনরাত্ৰি নির্নিমেষে চাহিয়া নেব্রের পানে নীরব সাধনা, নিস্তব্ধ আসনে বসি একাগ্র আগ্রহভরে রুদ্র আরাধনা । । চপল চঞ্চল প্রিয়া ধরা নাহি দিতে চায়, স্থির নাহি থাকে, کہتے মেলি নানাবর্ণ পাখ উড়ে উড়ে চলে যায় নব নব শাখে ; তুই তবু একমনে মৌনব্রত একাসনে বসি নিরলস । ক্রমে সে পড়িবে ধরা, গীত বন্ধ হয়ে যাবে মানিবে সে বশ । তখন কোথায় তারে ভুলায়ে লইয়া যাবি— কোন শূন্তপথে, অচৈতন্য প্রেয়সীরে অবহেলে লয়ে কোলে অন্ধকার রথে ! যেথায় অনাদি রাত্রি রয়েছে চির-কুমারী,— আলোক-পরশ একটি রোমাঞ্চরেখা আঁকেনি তাহার গাত্রে অসংখ্য বরষ ; স্বজনের পরপ্রাস্তে যে অনস্ত অস্তঃপুরে কতু দৈববশে দূরতম জ্যোতিষ্কের ক্ষীণতম পদধ্বনি তিল নাহি পশে, . সেথায় বিরাট পক্ষ দিবি তুই বিস্তারিয়া বন্ধনবিহীন, কাপিবে বক্ষের কাছে নবপরিণীতা বন্ধু নূতন স্বাধীন। نام وی