পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (তৃতীয় খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৭৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


૭8’ রবীন্দ্র-রচনাবলী আসিবে তন্ত্রার ঘোর পাস্থের নয়ন’পরে ক্লাস্ত অতিশয়, দিনাস্তের শেষ আলো দিগন্তে মিলায়ে যাবে, ধরণী উমাধার, স্বদূরে জলিবে শুধু অনন্তের যাত্রাপথে প্রদীপ তারার, শিয়রে শয়ন-শেষে বসি যারা অনিমেষে F. তাহাদের চোখে আসিবে শ্রাস্তির ভার নিদ্রাহীন যামিনীতে স্তিমিত আলোকে,— একে একে চলে যাবে আপন আলয়ে সবে সখাতে সখীতে, তৈলহীন দীপশিখা নিবিয়া আসিবে ক্রমে অর্ধরজনীতে, উচ্ছসিত সমীরণ আনিবে স্বগন্ধ বহি অদৃশু ফুলের, অন্ধকার পূর্ণ করি আসিবে তরঙ্গধ্বনি অজ্ঞাত কুলের, ওগো মৃত্যু, সেই লগ্নে নির্জন শয়ন প্রান্তে এসো বরবেশে, আমার পরান-বধু ক্লাস্ত হস্ত প্রসারিয়া বহু ভালোবেসে ধরিবে তোমার বাহু ; তখন তাহারে তুমি মন্ত্র পড়ি নিয়ে ; রক্তিম অধর তার নিবিড় চুম্বনদানে পাণ্ডু করি দিয়ে । শিলাইদহ, বোট ১৭ অগ্রহায়ণ, ১২৯৯