পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ত্রয়োবিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১২৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আকাশপ্রদীপ কেবল বিশুদ্ধ ভালোবাসি ।” কহিলাম হাসি, *আমি যাহা বলেছিস্থ সে-কথাটা মস্ত বড়ো বটে, কিন্তু তৰু লাগে না সে তোমার এ স্পধর্ণর নিকটে । মোহ কি কিছুই নেই রমণীর প্রেমে ।” সে কছিল একটুকু থেমে, *নেই বলিলেই হয় । এ ৰখা নিশ্চিত— জোর করে বলিবই— আমরা কাঙাল কছু নই।” আমি কছিলাম, ভদ্রে, তা হলে তো পুরুষের জিত ।”

  • কেন শুনিমাথাটা ঝণকিয়ে দিয়ে বলিল তরুণী । আমি কহিলাম, *যদি প্রেম হয় অমৃতকলস,

মোহ তবে রসনার রস । সে স্বধার পূর্ণ স্বাদ থেকে মোহহীন রমণীরে প্রবঞ্চিত বলে করেছে কে । আনন্দিভ হই দেখে তোমার লাবণ্যভরা কায় 1, তাহার তো বারো-আনা অামারি অন্তরবাসী মায়া । প্রেম আর মোহে একেবারে বিরুদ্ধ কি দোহে । আকাশের অালো বিপরীতে-ভাগ-করা সে কি সাদা কালে । ওই আলো আপনার পূর্ণতারে চুর্ণ করে দিকে দিগন্তরে, বর্ণে বর্ণে তুণে শস্তে পুষ্পে পর্ণে, পাখির পাখায় অার আকাশের নীলে, চোখ ভোলাৰার মোহ মেলে দেয় সর্বত্র নিখিলে । অভাৰ ৰেখানে এই মন-ভোলাবার সেইখানে স্বষ্টিকর্তা বিধাতার হার ।