পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ত্রয়োবিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৭৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্ৰহাসিনী তুমি ঐ ছাপাখানাটার ভূত, আমার ভাগ্যবশে তুমি তারি দূত । দশটা বাজল তৰু অাস নাই ; দেহটা জড়িয়ে অাছে আরামের বাসনাই ; মাঝে থেকে আমি খেটে মরি যে— পণ্য জুটেছে, খেয়াতরী ষে ঘাটে নাই । কাব্যের দধিটা বেশ করে জমে গেছে, নদীটা এইবার পার ক’রে প্রেলে লও, খাতার পাতায় ভারে ঠেসে লণ্ড । কথাটা তো একটুও সোজা নয়, স্টেশন-কুলির এ তে বোঝা নয় । বচনের ভার ঘাড়ে ধরেছি, চিরদিন তাই নিয়ে মরেছি ; বয়স হয়েছে অাশি, তবুও সে ভার কি কমবে না কৰ্ভু ও । আমার হতেছে মনে বিশ্বাস— সকালে জুলাল তব নিশ্বাস রান্নাঘরের ভাজগঞ্জুজিতে, সেখানে খোরাক ছিলে খুজিতে, উতলা আছিল তব মনট1, শুনতে পা ও নি তাই ঘণ্টা । শু টকিমাছের বার। রণধুনিক হয়তো সে দলে তুমি জtধুনিক । ఆ6*